শুক্রবার, ০৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৩

|

মাঘ ১৯ ১৪২৯

Advertisement
Narayanganj Post :: নারায়ণগঞ্জ পোস্ট

এস এস সি পরীক্ষার্থী নিতু পেল ৫ লাখ শিক্ষা অনুদান

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

প্রকাশিত: ২৩:৩৫, ২৯ ডিসেম্বর ২০২২

এস এস সি পরীক্ষার্থী নিতু পেল ৫ লাখ শিক্ষা অনুদান

প্রতীকী ছবি

নারায়ণগঞ্জ মর্গ্যান গার্লস স্কুল শিক্ষার্থী নিতু দাসের শিক্ষা জীবনের দায়িত্ব নিয়ে নগদ ৫ লাখ টাকা চেক দিয়েছেন গাজী গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক গাজী গোলাম মর্তজা পাপ্পা। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুর ১২ নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে এ চেক প্রদান করা হয়।  ওই সময় নিতু স্কুলের সহকারি শিক্ষিকা লায়লার বিচার দাবি করেন এবং আর কোন শিক্ষার্থী যেন এমন নিষ্ঠুর নির্যাতনের শিকার না হোন  এ মর্মেম সকলের কাছে আহবান জানান।

জানা গেছে, ২০২৩ সালে এস এস সি পরীক্ষার্থী নিতু দাসকে বিশেষ  ক্লাসের ৬ হাজার টাকা বেতন দিতে না পারায় টেস্ট পরীক্ষা(ভূগোল) চলাকালীন হল থেকে বের করে ৪০ মিনিট দাঁড় করিয়ে রেখেছিলেন স্কুলের সহকারি শিক্ষিকা লায়লা। নিতু রোলং নং ছিল-৩। বিশেষ ক্লাসের বেতন দিতে না পারায় নিতুকে তিন ভূগোলসহ তিন বিষয়ে ফেল করিয়ে দেয়া হয়। এ নিয়ে নিতু প্রতিবাদ জানিয়ে স্কুলে গিয়ে পরীক্ষার খাতা চ্যালেঞ্জ করে। কিন্তু স্কুলের শিক্ষিকা লায়লা সেই খাতা দেখাতে বাধ্য না এবং নিতুকে এস এস সি পরীক্ষা দিতে দেবে না বলে হুমকি দেয়। এক পর্যায়ে নিতু কান্নায় ভেঙ্গে পড়ে ফেসবুকে নিজের শিক্ষা জীবন ফিরিয়ে দিতে আকুতি জানায়। নিতুর সেই কান্নার ভিডিও ১৬ লাখ  ভিউ হয় এবং ৩৩ হাজার শেয়ার হয়ে ভাইরাল হয়ে যায়। এক পর্যায়ে নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক মঞ্জরুল হাফিজ এ বিষয়ে তদন্ত কমটি গঠন করে নিতুকে পরীক্ষা দেয়া ব্যবস্থার আশ^াস দেন। একই সাথে ঢাকা শিক্ষা বোর্ড, নারায়ণগঞ্জ শিক্ষা অফিস থেকে আলাদা কমিটি গঠিত হয়। 

নিতু জানান, প্রাথমিক তদন্তে ইতমধ্যে স্কুলের শিক্ষার্থীরা ওই শিক্ষিকার বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। কিন্তু শিক্ষিতা এখনো স্কুলে  আছে। তদন্ত কমিটি স্কুলে গিয়ে সকল শিক্ষার্থীকে একসাথে কওে জিজ্ঞেস করে । সেই সময় শিক্ষার্থীরা লায়লা ম্যাডামের বিষয়ে লিখিত অভিযোগ জমা দেয় তদন্ত কমিটির কাছে।

এ বিষয়ে স্কুল শিক্ষার্থী নিতু জানান, আমি শিক্ষিকার বিরুদ্ধে নই। আমি চাই অনিয়মটা বন্ধ হোক। সুষ্ঠ তদন্ত হোক।  যাতে দোষীরা ছাড় না পায়। ৫ লাখ টাকার চেক পেয়ে আমি শিক্ষা জীবটা সুন্দরভাবে যেন গড়তে পারি এ জন্য গাজী গ্রুপকে ধন্যবাদ। 

এ বিষয়ে নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক মঞ্জ্রুুল হাফিজ জানান, নিতুর পরীক্ষা দেয়ার ব্যবস্থা হয়েছে। আর ওই স্কুলের বিষয়টি নিয়ে তদন্ত কমিটির তদন্ত চলছে। 

তিনি আরও জানান, প্রাথমিক তদন্তে আমরা কিছু অনিয়ম পেয়েছি।