শুক্রবার, ০৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৩

|

মাঘ ১৯ ১৪২৯

Advertisement
Narayanganj Post :: নারায়ণগঞ্জ পোস্ট

খালেদা জিয়ার মুক্তি ও তারেক রহমানের ফেরার পথ বললেন কাজী মনির

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

প্রকাশিত: ১৭:৩০, ৮ জানুয়ারি ২০২৩

আপডেট: ১৭:৩০, ৮ জানুয়ারি ২০২৩

খালেদা জিয়ার মুক্তি ও তারেক রহমানের ফেরার পথ বললেন কাজী মনির

ফাইল ছবি

বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি কাজী মনিরুজ্জামান বলেছেন, কোন কূটকৌশলে যদি শেখ হাসিনা আবার ক্ষমতায় আসে তাহলে খালেদা জিয়া আর মুক্তি পাবে না। তাকে হটিয়ে নিরপেক্ষ নির্বাচন দিতে হবে। তাহলেই খালেদা জিয়া মুক্তি পাবেন তারেক জিয়া দেশে আসতে পারবেন।

রোববার (৮ জানুয়ারি) দুপুরে নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জে বিএনপির ঘোষিত যুগপৎ আন্দোলনের ১০ দফা দাবি ও রাষ্ট্রকাঠামো মেরামতের রূপরেখার ব্যাখ্যা ও বিশ্লেষণ শীর্ষক আলোচনা সভায় অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন তিনি। 

তিনি আরও বলেন, আমি এ আন্দোলনের সূচনালগ্নে নারায়ণগঞ্জের দুটি তাজা প্রান শাওন ও অনিকের আত্মার মাগফিরাত কামনা করছি। আজ এ ব্যানারে লেখা আছে প্রথমে দশ দফ তারপর সাতাশ দফা। বাংলাদেশের তেত্রিশটি দল এবং মূলত জাতীয়তাবাদী দল আন্দোলন করবে। সরকার পরিবর্তনের পর আমরা এ দশ দফা ও সাতাশ দফা বাস্তবায়ন করবো।

এখন যৌবন যার যুদ্ধে যাওয়ার সময় তার৷ আজ থেকে বায়ান্ন বছর আগে আমি ও গিয়াস সাহেব মুক্তিযুদ্ধে গিয়েছি। আমি তাকে চিনতাম না। কিন্তু আমিও মুক্তিযুদ্ধে গিয়েছি তিনিও গিয়েছেন। গিয়াস সাহেব একবারের নির্বাচিত সাংসদ। আমিও একবার প্রার্থী হয়েছিলাম। জীবনের নিকৃষ্টতম একটি ঘটনার সাক্ষী আমি। কী নির্লজ্জ ভাবে জনগণের ভোটের অধিকার কেড়ে নিয়ে বলা যায় আমরা জনগণের ভোটে নির্বাচিত। আজ তাদের ক্ষমতার থেকে সরানোর জন্য আমরা দশ দফা দিয়েছি।

যদি এ সরকারকে সরাতে না পারি তাহলে কোন দফা বাস্তবায়ন হবে না। এ সরকারকে ক্ষমতা থেকে সরাতে হবে। নতুন একটি নির্বাচন কমিশন গঠন করে তত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন করতে হবে। সে নির্বাচনে বিএনপি ক্ষমতায় আসবে। এটা বাংলাদেশের নব্বই শতাংশ মানুষ বিশ্বাস করে।

নিজের রাজনীতির সূচনা তুলে ধরে তিনি বলেন, আমি জিয়াউর রহমানের হাত ধরে যুবদলের মাধ্যমে রাজনীতি শুরু করেছি। আপনারা যারা জিয়াউর রহমানকে না দেখে রাজনীতি করছেন আপনারা সঠিক পথে আছেন। এ দেশকে এগিয়ে দেয়ার দায়িত্ব আপনাদের। শহীদ জিয়ার যোগ্য সন্তান তারেক জিয়া। বিভাগীয় সমাবেশগুলোতে একটি নাম সাগরের উত্তাল ঢেউয়ের মত উঠেছে। সে নাম তারেক জিয়া। আওয়ামী পরিবারে এমন কারন নাম আছে কী?

সারা দেশে বিভাগীয় সমাবেশে যখন দেখি তারেক জিয়ার পাশে খালেদা জিয়া ও শহীদ জিয়ার ছবি। শ্রমিক ও মেহনতী মানুষের মনে তারেক জিয়া জায়গা করে নিয়েছেন। খালেদা জিয়াকে আটকে রেখে তিনি কত বড় ভুল করছেন তিনি হয়ত বুঝতে পারছেন না।

তিনি বলেন, এই ২০২৩ সালে সাংবিধানিক নিয়ম অনু্যায়ী নির্বাচন হতে হবে। আমরা কী শেখ হাসিনার অধীনে নির্বাচন মেনে নেব, মানব না। নির্বাচন হতে হলে এ সরকারকে পদত্যাগ করতে হবে। তাহলেই বিএনপি নির্বাচনে যাবে। তা না হলে এদেশে কোন নির্বাচন হবে না।

এসময় উপস্থিত ছিলেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আহমদ আজম খান, বিএনপি নির্বাহী কমিটির সদস্য মোস্তাফিজুর রহমান ভূইয়া দিপু, আজহারুল ইসলাম মান্নান, কাজী মনিরুজ্জামান, মহানগর বিএনপির আহবায়ক অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন খান, জেলা বিএনপির আহবায়ক গিয়াসউদ্দিন, সদস্য সচিব গোলাম ফারুক খোকন, জেলা বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক মাসুকুল ইসলাম রাজীব, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি আনোয়ার সাদাত সায়েম প্রমুখ।