শুক্রবার, ২১ জুন ২০২৪

|

আষাঢ় ৭ ১৪৩১

Advertisement
Narayanganj Post :: নারায়ণগঞ্জ পোস্ট

জেলা ছাত্রদলে অনন্য নেতৃত্বে নাহিদে আস্থা

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

প্রকাশিত: ২৩:৫০, ২৭ মে ২০২৩

জেলা ছাত্রদলে অনন্য নেতৃত্বে নাহিদে আস্থা

ফাইল ছবি

নারায়ণগঞ্জ জেলা ছাত্রদলের দায়িত্ব পাবার পর একের পর এক চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করে সংগঠনকে সামনে এগিয়ে নিয়ে নিজের অনন্য দক্ষতার প্রমান রেখে চলেছেন সভাপতি নাহিদ হাসান ভুঁইয়া। একজন শিক্ষিত ভদ্র ও সক্রিয় কর্মী হিসেবে অনেক আগেই নিজেকে ছাত্রদলের রাজনীতিতে প্রতিষ্ঠিত করেছেন নাহিদ।

২৬ জানুয়ারি জেলা ছাত্রদলের ৯ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি অনুমোদন দেন ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সভাপতি কাজী রওনকুল ইসলাম শ্রাবন ও সাধারণ সম্পাদক সাইফ মাহমুদ জুয়েল। এতে নাহিদ হাসান ভূঁইয়াকে সভাপতি ও জুবায়ের রহমান জিকুকে সাধারণ সম্পাদক করা হয়েছে।

জানা যায়, স্কুল জীবন থেকে ছাত্রদলের রাজনীতিতে উদ্বুদ্ধ হয়ে পরিবারের সকল সদস্যদের বিএনপির রাজনীতি করতে দেখে রাজনীতির প্রতি ঝোঁক আসে নাহিদের। তখন থেকে বিএনপির বিভিন্ন মিছিল মিটিং সমাবেশে পরিবারের বাধা সত্ত্বেও ছুটে যেতেন তিনি। পরিবার থেকে প্রথম প্রথম নিষেধ করলেও সেটি একসময় বন্ধ হয়ে যায় নাহিদের আগ্রহ দেখে। তারাও ধীরে ধীরে ছেলেকে অনুৎসাহিত করা থেকে সরে আসেন। 

নিজের ব্যবসা বানিজ্যে রাজনীতিতে সময় দিতে গিয়ে ধীরে ধীরে অনেকটা পড়েন নাহিদ। ছাত্রদলের রাজনীতির পুরো সময়টাকে বিএনপি ছিল ক্ষমতার বাইরে। এই বিরোধীদলের ১৪ বছরের রাজনীতিতে আন্দোলন সংগ্রামের মাঠেই থাকতে হয় দলতে। রাজনীতির মাঠে সক্রিয় হবার শুরু থেকে তাই আন্দোলন সংগ্রামের লড়াইতে সম্মুখেই থাকতে হয়েছে নাহিদদের। 

নাহিসের রাজনীতির সূচনা ২০০৬ সালে স্কুলে পড়াকালীন। ৬ ভাইয়ের মধ্যে সকলেই বিএনপির রাজনীতিতে যুক্ত। বিএনপির রাজনীতি করতে করতে রূপগঞ্জ থানা যুবদলের সভাপতি ও জেলা যুবদলের সহ সভাপতি থাকাকালীন মৃত্যুবরণ করেন তার ভাই দেলোয়ার হোসেন ভুঁইয়া। 

২০২০ সালে রূপগঞ্জ ছাত্রদলের সিনিয়র সহ সভাপতি, ২০২১ সালে রূপগঞ্জ ছাত্রদলের সভাপতি ও ২০২৩ সালে জেলা ছাত্রদলের সভাপতি পদে অধিষ্ঠিত হন নাহিদ। স্বচ্ছ, নম্র, ভদ্র ও ঠান্ডা মাথার রাজনীতির পাশাপাশি রাজপথের সর্বোচ্চ সক্রিয়তা তাকে এগিয়ে নিয়েছে রাজনীতিতে। শুধু রূপগঞ্জ কিংবা নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপি, মহানগর বিএনপির কর্মসূচী নয় দলের ডাকে ঢাকায় দলের বিভিন্ন কর্মসূচীতে নেতাকর্মীদের নিয়ে সরব অবস্থানে থাকেন নাহিদ। তার আহেন অবস্থান পছন্দ কেন্দ্রের।

জেলা ছাত্রদলের দায়িত্ব পাবার পর থেকে চলছে নারায়ণগঞ্জের বিভিন্ন ইউনিট কমিটি ঘোষণার কাজ। চলতি সপ্তাহে ১২ টা ইউনিট কমিটি দেয়ার চেষ্টা চলছে জেলা ছাত্রদলের। এতে নাহিদ সর্বোচ্চ চেষ্টা করছেন দলের জন্য যারা নিবেদিতপ্রাণ ও সক্রিয় তাদের পদে আনতে। 

রাজনীতিতে সক্রিয়ভাবে অংশ নিয়ে এখন পর্যন্ত ৫টি মামলার শিকার হয়েছেন নাহিদ। এর মধ্যে একাধিক কর্মসূচী আওয়ামীলীগ ছাত্রলীগের হামলার শিকার হয়েছেন নাহিদের একাধিক মিছিল। এর মধ্যে ছাত্রদল নেতা অনিক নিহতের ঘটনা উল্লেখযোগ্য।

জেলা ছাত্রদলের নেতাকর্মীদের মতে, এমন ভদ্র ও শিক্ষিত নেতৃত্ব ছাত্রদলের কাছে প্রত্যাশা করে দল। নেতাকর্মীদের প্রত্যাশা পূরণে নাহিদের মত নেতাদের ছাত্রদলের সকল স্তরে রাজনীতিতে প্রতিষ্ঠিত করতে হবে। ছাত্রদলের এসব তৃণমূল থেকে উঠে আসা নেতাদের ছাত্রদলের পরে দলের অন্যান্য সংগঠনে পদায়ন করতে সেসব সংগঠনকেও সাফল্যমন্ডিত করতে হবে। আর তা করতে পারলেই দলের প্রকৃত নেতাকর্মীরা প্রতিষ্ঠিত হবে।