শুক্রবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২

|

আশ্বিন ১৪ ১৪২৯

Advertisement
Narayanganj Post :: নারায়ণগঞ্জ পোস্ট

নীলার বহিষ্কার প্রত্যাহার দাবি গাজীর 

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

প্রকাশিত: ১৪:৫৪, ১১ আগস্ট ২০২২

নীলার বহিষ্কার প্রত্যাহার দাবি গাজীর 

কার্যনির্বাহী কমিটির সভা

নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের শিক্ষা ও মানব সম্পদ বিষয়ক সম্পাদকসহ দলীয় সকল পদ থেকে ফেরদৌসী আলম নীলাকে অব্যাহতি দেয়ার বিরোধিতা করে তার বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার দাবি করেছেন মন্ত্রী ও নারায়ণগঞ্জ ১ আসনের সংসদ সদস্য গোলাম দস্তগীর গাজী। 

বৃহস্পতিবার (১১ আগস্ট) দুপুরে নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে জেলা আওয়ামীলীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সভায় নিজের বক্তব্যে এ দাবি করেন মন্ত্রী। 

তিনি বলেন, মন্ত্রী হয়েছি অনেক কাজ করতে হয়। তার পাশাপাশি নদী কমিশনের চেয়ারম্যানের দায়িত্ব। আমাদের এলাকায় যত নদী আছে সেখানে সমীক্ষা করছি আমাদের এলাকার নদীগুলো কীভাবে সংস্কার করা যায়। আজ বৃষ্টি নেই চাষাবাদ নেই। নদীগুলো থাকলে আমরা সেচ করে চাষাবাদ করতে পারতাম। 

এমন কোন লোক নেই যার বিরুদ্ধে অভিযোগ ওঠেনি। এর জন্য যদি আমাদের বহিষ্কার করা হয় বা অব্যাহতি দেয়া হয় তাহলে তো আওয়ামী লীগ থাকবে না। আমাদের তিনবারের ভাইস চেয়ারম্যান ও রূপগঞ্জ আওয়ামী লীগের নেত্রী। সামনে নির্বাচন, তাকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে। আস্তে আস্তে এটা আলোচনায় আসবে। যে আওয়ামী লীগের জনপ্রতিনিধিরা কেমন। এতে নারায়ণগঞ্জের সকল এমপি ক্ষতিগ্রস্থ হবে। আওয়ামী লীগের এক এমপি মন্ত্রীর ছত্রছায়ায় এ ধরনের নেত্রী আছে মানে সবার সাথে আছে, এ ধরনের কথা হবে। এটা কী আইনে কুলায়। আগে শোকজ করতে হয়। অপরাধ করে থাকলে এটা রাজউকের ব্যাপার। রাজউককে নিয়ে এটা আলোচনা হবে। আওয়ামী লীগের তো এখানে কিছু করার নেই। 

আমাদের সংগঠনের একটি সার্কুলার দেয়া হয়েছে। কোন কমিটি ভাঙা যাবে না। কাউকে অব্যাহতি বহিষ্কার করা যাবে না। যদি কেউ নৌকার বিরুদ্ধে নির্বাচন করে তাহলে তাকে অব্যাহতির জন্য প্রস্তাব পাঠাতে পারে। সুতরাং এ ধরনের কার্যকালাপ নাই করলেন। কাউকে অব্যাহতি দেয়া যাবে না। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে পাঠাতে হবে। কোন কমিটিও ভেঙে দেয়া যাবে না। 

আমাদের মধ্যে কোন্দল আছে। আওয়ামী লীগ একটি বড় দল। সেখানে কোন্দল থাকতেই পারে। একে অপরকে যদি হিংসে করি আপনাদের বিবেক আছে কী করতে হবে। আমরা বার বার আওয়ামী লীগকে বিজয়ী করেছি। আজ বিএনপি মাঠে নেমেছে। তারা বিভিন্ন দিক দিয়ে আমাদের হেয় করার চেষ্টা করছে। আপনি কী তাদের হাতে হাতিয়ার দিবেন। এগুলো যখন বিএনপি মাঠে মাঠে বলে বেড়াবে তখন আওয়ামী লীগের উন্নতি হবে না অবনতি হবে। আপনি সভাপতি সেক্রেটারি আপনিতো রক্ষা করবেন আওয়ামী লীগকে। সেটা না করে আপনি যদি আওয়ামী লীগকে ধ্বংসের দিকে নিয়ে যান তাহলে আওয়ামী লীগ কীভাবে টিকে থাকবে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কীভাবে প্রধানমন্ত্রী হবেন আগামী নির্বাচনে। 

আমরা চেষ্টা করছি আমরা দলীয় কোন্দল মেটাবো না আপনাদের অব্যাহতি দেখবো। আমরা সবাই বিপদে আছি। আপনাদের একটি চিঠিতে অনেক কিছু আসে যায়। এতে মানুষের অপূরণীয় ক্ষতি হতে পারে। আপনি কী এখনও চিঠি পেয়েছেন, পাননি। কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটি থেকে আদেশ পেয়েছেন? তাহলে আমাদের কী মূল্য থাকল এখানে। আমাদের সকলের অনেক ত্যাগ আছে। কাউকে ছোট করে ভাবা যাবে না। প্রতিটি মানুষ এখানে কিছু একটার বিনিময়ে এসেছেন। 

আমি হাউজের মতামত চাই। কারণ এই অব্যাহতি দেয়ার অধিকার আমাদের আছে। আমরা চাই আপনি এই অব্যাহতি উইথড্র করুন। আপনি শোকজ করে দিতে পারেন। নাহলে গণতন্ত্র কীসের। এমন হলে গণতন্ত্র কেথায় থাকবে। 

এসময় জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আব্দুল হাই, সাধারণ সম্পাদক আবু হাসনাত শহীদ মোঃ বাদল, নারায়ণগঞ্জ ২ আসনের সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম বাবু উপস্থিত ছিলেন। 

এর আগে বৃহস্পতিবার (৪ আগষ্ট) জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুল হাই ও সাধারণ সম্পাদক আবু হাসনাত মোঃ শহীদ বাদলের স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে বহিষ্কারের তথ্য জানানো হয়। 

সংগঠন বিরোধী কর্মকাণ্ডের সাথে সম্পৃক্ত থাকার দায়ে নীলার বিরুদ্ধে এ ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে বলে জানায় জেলা আওয়ামীলীগ। 

রুপগঞ্জের পূর্বাচল ও এর আশেপাশের এলাকায় জমি দখলসহ নানা অবৈধ কাজে দাপট ও প্রভাব খাটানোর অভিযোগ রয়েছে এই নীলার বিরুদ্ধে। সম্প্রতি পূর্বাচলে তার পূর্বাচল লেডিস ক্লাব গুড়িয়ে দেয় রাজউক।