শুক্রবার, ০৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৩

|

মাঘ ১৯ ১৪২৯

Advertisement
Narayanganj Post :: নারায়ণগঞ্জ পোস্ট

ফিরে দেখা ২০২২

ছাত্রদল সভাপতির পালায়ন ও সম্পাদককে পেটানো ছিল আলোচিত

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

প্রকাশিত: ১৭:২২, ৩১ ডিসেম্বর ২০২২

ছাত্রদল সভাপতির পালায়ন ও সম্পাদককে পেটানো ছিল আলোচিত

ফাইল ছবি

নারায়ণগঞ্জে ছাত্রদল নেতাকর্মীদের ওপর হামলার ঘটনা ও ঘটনাস্থল থেকে সাধারণ সম্পাদককে ফেলে কেন্দ্রীয় ছাত্রদল সভপতি কাজী রওনকুল ইসলাম শ্রাবণের পালানোর ঘটনা ছিল বছরের অন্যতম আলোচিত ঘটনাগুলোর একটি।

২৩ নভেম্বর বিকেলে নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজার উপজেলার আড়াইহাজার বাজারে আওয়ামী লীগ কার্যালয়ের সামনে হামলার শিকার হয়েছেন ছাত্রদল নেতারা। এ সময় কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক সাইফ মাহমুদ জুয়েলকে ফেলেই ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের মারধরের ভয়ে ঢাকায় ফিরেন সভাপতি কাজী রওনাকুল ইসলাম শ্রাবণ। নিজে মারধর থেকে নেতাকর্মী নিয়ে বেঁচে গেলেও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের হাতে ফেলে আসেন সাধারণ সম্পাদক সাইফ মাহমুদ জুয়েলকে। এসময় জুয়েলকে একা ফেলে আসায় তাকে একাকি পেয়ে ব্যাপক মারধর করেন উপজেলা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা।

ঘটনার দিন দুপুরে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার বাঞ্ছারামপুর উপজেলা ছাত্রদলের নিহত নেতা নয়নের পরিবারের সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে যান বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ছাত্রদল সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকসহ ডজনখানেক নেতা। বিকেলে তারা ফিরছিলেন ঢাকার দিকে। এ সময় তারা হামলার শিকার হন।

প্রত্যক্ষদর্শী একাধিক ব্যক্তির তথ্য অনুযায়ী, হামলার সময় ছাত্রদলের সভাপতি শ্রাবণ ও জুয়েল ছিলেন একটি গাড়িতে। সেই গাড়ি থেকে নেমে একাই ছুটে গিয়ে একটি সিএনজিচালিত অটোরিকশায় চড়ে দ্রুত সাধারণ সম্পাদককে একা ফেলে ঢাকা ফেরেন শ্রাবন। তবে হামলাকারীদের প্রতিরোধ করেন জুয়েল। এ সময় ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা তাকে ধরে ফেলেন। তিনি মারধরের শিকার হন।

আড়াইহাজার পৌরসভা বিএনপির সভাপতি মাহমুদ উল্লাহ বলেন, আমরা খবর পেয়ে দ্রুত ছুটে এসেছি। এর আগেই এখানে হামলা করে আমাদের কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক সাইফ মাহমুদ জুয়েলকে রক্তাক্ত করা হয়েছে। তবে সভাপতি শ্রাবনকে সেখানে পাওয়া যায়নি।