শুক্রবার, ০৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৩

|

মাঘ ১৯ ১৪২৯

Advertisement
Narayanganj Post :: নারায়ণগঞ্জ পোস্ট

শামসুজ্জোহা স্কুলের শিক্ষার্থীদের মারধর ১২দিনেও হামলাকারীরা গ্রেফতার হয়নি

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

প্রকাশিত: ২৩:০৯, ২৩ জানুয়ারি ২০২৩

শামসুজ্জোহা স্কুলের শিক্ষার্থীদের মারধর ১২দিনেও হামলাকারীরা গ্রেফতার হয়নি

প্রতীকী ছবি

বন্দরে শামসুজ্জোহা উচ্চ বিদ্যালয়ের ২ শিক্ষার্থীকে পিটিয়ে জখম করার অভিযোগটির কোন সুরাহা করেনি পুলিশ। ১২ দিন অতিবাহিশ হলেও এ ঘটনায় পুলিশ কাউকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি। এ নিয়ে স্কুলের শিক্ষার্থীদের মধ্যে চরম ক্ষোভ বিরাজ করছে। গুরুতর জখম শিক্ষার্থী স¤্রাট ও সাব্বির এখনো চিকিৎসাধীন। তারা এখনো স্কুলে আসতে পারছেনা। গত ১১ জানুয়ারি শামসুজ্জোহা স্কুলের শিক্ষার্থীরা হাজী ইব্রাহীম আলম চান উচ্চ বিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের সাথে স্কুল মাঠে ক্রিকেট খেলায় অংশ গ্রহণ করে। খেলায় শামসুজ্জোহা স্কুলের শিক্ষার্থীরা জয়লাভ করে। খেলা শেষ করে শিক্ষার্থীরা অটো যোগে নিজ স্কুলে যাওয়ার পথে বন্দর রেল লাইন শাহজালাল মাদ্রাসার সামনে এলে ১০/১৫ জনের অজ্ঞাত যুবক এসে সন্ত্রাসী কায়দায় ছাত্রদের অটোর পথ রোধ করে শিক্ষার্থীদের উপর আর্তকিত হামলা চালায়। অজ্ঞাত যুবকরা শামসুজ্জোহা স্কুলের শিক্ষার্থীদের এলোপাথারী ভাবে ক্রিকেট খেলার স্ট্যাম্প ও ব্যাট দিয়ে পিটাতে থাকে। এতে শিক্ষার্থী স¤্রাট ও সাব্বির গুরুতর জখম হয়। তাদের ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপতালে ভর্তি করে। 

এ ঘটনায় শামসুজ্জোহা স্কুলের প্রধান শিক্ষক এরশাদ উল্লাহ বাদী হয়ে অজ্ঞাত আসামী করে থানায় অভিযোগ করে। কিন্তু পুলিশ ১২ দিনেও কোন আসামী ধরতে পারেনি। এ ব্যপারে স্কুলের ক্রীড়া শিক্ষক বলেন, আমাদের শিক্ষার্থীদের উপর যেভাবে হামলা করেছে তা কোন সভ্য সমাজে হতে পারে না। আমি হামলাকারীদের বাধা দিলে তারা আমাকেও লাঞ্ছিত করে। স্কুলের শিক্ষার্থীরা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, দ্রুত পুলিশ এর কোন ব্যবস্থা বা হামলাকারীদের গ্রেফতার না করলে আমরা রাস্তায় নামতে বাধ্য হব। স্কুলের প্রধান শিক্ষক এরশাদ উল্লাহ বলেন, আমাদের শিক্ষার্থীদের উপর বর্বর হামলা করার ঘটনাটি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও স্কুলের সভাপতিকে জানিয়েছি। আমি নিজে বাদী হয়ে থানায় অভিযোগ করেছি। কিন্তু পুলিশ এখনো কাউকে গ্রেফতার করেনি। হামলাকারীদের দ্রুত গ্রেফতার দাবি করছি। তা না হলে শিক্ষার্থীদের থামাতে আমাদের কষ্ট হয়ে যাবে। শিক্ষার্থীদের মধ্যে চরম ক্ষোভ বিরাজ করছে।