শুক্রবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২২

|

অগ্রাহায়ণ ১৬ ১৪২৯

Advertisement
Narayanganj Post :: নারায়ণগঞ্জ পোস্ট

আমরা আমাদের মত কর্মসূচি পালন করে যাবো : খোরশেদ

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

প্রকাশিত: ২২:৫৫, ৩ অক্টোবর ২০২২

আমরা আমাদের মত কর্মসূচি পালন করে যাবো : খোরশেদ

মাকসুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ

নারায়ণগঞ্জ মহানগর যুবদলের সাবেক সভাপতি ও সিটি করপোরেশনের ১৩ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মাকসুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ বলেছেন, কেন্দ্রীয় কমিটির নেতাদের কাছে আবেদন থাকবে একটি ৪১ সদস্যের কমিটিতে ১৫ জনই পদত্যাগ করছেন। আমি যতটুকু জানি অনেকেই বিরত আছেন। এখানে কে নেতা হবে সেটা বড় কথা নয়। আমাদের শেখ হাসিনার জুলুম থেকে বাঁচতে হবে। তাই একটি নতুন ও শক্তিশালী কমিটি গঠন করার জন্য কেন্দ্রের কাছে আবেদন জানাবো। আমরা দলের জন্য নিজেদের উজার করে মাঠে থাকতে চাই। আমাদের রাগ অভিমানের কারণে দল যেন ক্ষতিগ্রস্ত না হয়। আমরা আমাদের মত কর্মসূচি পালন করে যাবো। আগামী দিনে আমরা সকলে এক সাথে রাজপথে থাকবো।

সোমবার (৩ অক্টোবর) নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির পদত্যাগকারী নেতাকর্মীদের নিয়ে দলের জন্য মাঠে থাকতে ও তারেক রহমানের হাতকে শক্তিশালী করতে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় অংশ নিয়ে একথা বলেন তিনি। এসময় আগামী ৬ অক্টোবর কেন্দ্র ঘোষিত শোক র‍্যালি করার সিদ্ধান্ত নেন নেতারা।

খোরশেদ বলেন, আমাদের এক বছরও হাতে নেই নির্বাচনের। নমিনেশন যাকেই দেক যদি নির্বাচনে যাই এ কমিটির অধীনেই নির্বাচন করতে হবে। আপনারা ভাবুন এই কমিটির সেই বিজয় ছিনিয়ে আনার সামর্থ্য আছে কিনা। এখানে প্রার্থী হওয়ার মত লোকও নেই। এটা নারায়ণগঞ্জ সদর আসন। এখানে ফাইট দেয়ার মত কোন লোক রাখা হয়েছে কিনা সেটা দেখতে হবে। 

তিনি আরও বলেন, আমাদের বাদ দেয়া হয়েছে। এখানে একদল আছেন যারা পদত্যাগ করেছেন। আবার আরেক দল আছে যাদের নাম ঠিকানাও কমিটিতে রাখা হয়নি। এর বাইরেও আরও উপযুক্ত লোক ছিল যাদের নিতে পারত। কালাম গ্রুপ তৈমূর গ্রুপকে তারা সাইজ করল। এর বাইরেও উপযুক্ত ভাল লোক ছিল। তবে তারা নিজেদের ঘরের কমিটি করেছে।

তিনি বলেন, আমি কারও নাম উল্লেখ করে কাউকে দোষারোপ বা গুনগান করে বক্তব্য রাখার পক্ষে না। আপনাদের কাছে অনুরোধ করি আপনারা ব্যক্তিগত সমালোচনার ঊর্ধে গিয়ে দলকে কীভাবে রক্ষা করা যায় সেই ব্যাপারে মতামত দিবেন।

তিনি বলেন, আমি মনে করি যে কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে সেখানে নেতাকর্মীদের চিন্তা চেতনার প্রতিফলন ঘটেনি। নারায়ণগঞ্জে যে ধরনের শক্তিশালী কমিটি দরকার তেমনটা হয়নি। এখনাে ব্যাক্তি ইচ্ছায় কাজ হয়েছে। সাংগঠনিক রীতি অনুযায়ী আব্দুল মতিন চৌধুরী যখন স্থায়ী কমিটির সদস্য তখনও তাকে সম্মান হিসেবে এক নম্বর সদস্য রাখা হত। তো নারায়ণগঞ্জ মহানগরের কমিটি করার ক্ষেত্রে আমাদের তিনবারের এমপি ও সাবেক সভাপতি কালাম ভাইকে নিয়ম অনুযায়ী করার কথা ছিল। যারা পদ পেয়েছে তাদের না হয় জ্ঞানের সীমাবদ্ধতা রয়েছে, কেন্দ্র থেকে যখন কমিটিটা দেয়া হল তখন বিধি মেতাবেক এটা পাওয়ার কথা। তিনি অসুস্থ হোক বা যাই হোক। সেখানে কালাম ভাইকে সদস্য হিসেবে রাখা হয়নি।

অনেকে দুই দিকেই ঝুঁকছেন উল্লেখ করে তিনি বলেন, আমাদের মধ্যে অনেকে দুই দিকের খোঁজ খবর রাখি। এমন পদ ভিখারি হলে চলবে না। আমাদের দল ভিখারি হতে হবে। দলের চিন্তা করেন। দলকে বাঁচানোর জন্য কাজ করুন।

খোরশেদ আরও বলেন, বিএনপির মাধ্যমে নারায়ণগঞ্জ আমি চষে বেরিয়েছি। কোথাও পুলিশ কিংবা আওয়ামী লীগের কাউকে কোথাও ভয় পাইনি। তবে আমার বাড়ির সামনে একটা ছোট পরিবার আছে যারা আওয়ামী লীগ করে। তাদের আমি ভয় পাই। কারণ তারা রাস্তায় অশ্লীল ভাষায় গালাগালি করে। আমিতো তাদের মত অশ্লীল ভাষা ব্যাবহার করতে পারি না। আপনারা তাদের চেনেন। আমরা তাদের সুযোগ সৃষ্টি করে দিতে চাই না।

এসময় উপস্থিত ছিলেন মহানগর বিএনপির পদত্যাগ করা ১৫ জন যুগ্ম আহবায়ক ও সদস্যসহ অন্তত ৫০ জন নেতা।