শুক্রবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২

|

আশ্বিন ১৪ ১৪২৯

Advertisement
Narayanganj Post :: নারায়ণগঞ্জ পোস্ট

সিদ্ধিরগঞ্জে কিশোর শ্রমিকের মৃত্যুর ঘটনা ধামাচাপা দিতে শ্রমিকলীগ নেতার দেন দরবার

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

প্রকাশিত: ১৯:২৫, ১১ আগস্ট ২০২২

আপডেট: ১৯:২৬, ১১ আগস্ট ২০২২

সিদ্ধিরগঞ্জে কিশোর শ্রমিকের মৃত্যুর ঘটনা ধামাচাপা দিতে শ্রমিকলীগ নেতার দেন দরবার

ফাইল ছবি

সিদ্ধিরগঞ্জে নির্মাণাধীন দশতলা পার্ক টাওয়ার ভবনের ৭ তলার লিফটের অংশ দিয়ে পড়ে ফাহিম (১৪) নামের কিশোর এক শ্রমিকের মৃত্যুর ঘটনা ধামাচাপা দিতে প্রকাশে শ্রমিকলীগ নেতা কবির হোসেনের দেন দরবারের ঘটনায় এলাকায় তীব্র ক্ষোভ ও সমালোচনার সৃষ্টি হয়েছে।
অপরদিকে এ ঘটনার একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। ঘটনাটি ঘটে নাসিক ৫নং ওয়ার্ডের আইয়ুব নগর এলাকায়।

ভাইরাল হওয়া ভিডিওতে প্রকাশ্যে সাংবাদিকদের উপ¯ি’তিতে শ্রমিকলীগ নেতা কবির হোসেন বলেন, নিহত কিশোর ফাহিম কাজ করার সময় ময়লা ফেলতে গিয়ে লিফটের অংশ দিয়ে পরে তার মৃত্যু হয়েছে। তিনি বলেন এখানে সবাই আমাদের লোক। দেখা গেছে এখানে নিহতের পক্ষে লিখতে গিয়ে অন্য জনের ক্ষতি হলো এতে নিহতের পরিবার কিছুই পেলো না।

এখন ইকবাল (ঠিকাদার মো: ইকবাল হোসেন) আমাদের লোক। আমাদের কাজ করে। এসময় কবির হোসেন নাসিক ৫ নং ওয়ার্ড তার নিজের বলে দাবি করেন। এসময় তিনি সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মশিউর রহমানকে টেলিফোনের মাধ্যমে বিষয়টি জানান।
পরবর্তীতে কবির হোসেনকে বলতে দেখা যায় ওসি স্যারকে আমি ফোন করেছিলাম, তিনি আমাকে বলেছে এ ঘটনায় নিহতের পরিবারের যদি কোন অভিযোগ না থাকে তাহলে বিষয়টি বসে মিমাংসা করে নিতে। কবির হোসেন বলেন ইকবাল ভালো মানুষ। সে আমাদেরই লোক।
আমি একটু জরুরি কাজে এয়ারপোর্ট যাবো। প্রয়োজনে মালিক পক্ষের লোকজনের সাথে বসে বিষয়টি মিমাংসা করবো। এসময় রিপোর্ট না করতে যাওয়ার সময় কবির হোসেন তার সহযোগী হামিদুল ইসলাম জয়সহ কয়েকজনকে সাংবাদিকদের চা খাওয়ানোর জন্য নির্দেশ দিতে দেখা যায়।

এদিকে স্থানীয়দের অভিযোগ, নির্মাণাধীন পার্ক টাওয়ারের মালিক সিদ্ধিরগঞ্জ বিদ্যুৎ কেন্দ্রের প্রকৌশলী আমিনুলসহ ১৮ জন। এর নির্মাণ কাজের কোন নিরাপত্তা বেষ্টনি নেই। এছাড়াও নির্মাণ শ্রমিকদেরও নিরাপত্তা সরঞ্জাম না থাকায় এই দূর্ঘটনা ঘটেছে। কোন ধরনের সেফটি ছাড়াই ভবনটি নির্মাণ কাজ চলছে।

এদিকে ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে পুলিশকে না জানিয়ে নিহতের পরিবারকে আর্থিক সহায়তার মিথ্যা আশ্বাস দিয়ে লাশ গ্রামের বাড়ীতে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা চালায় ঠিকাদার ইকবালের লোকজন। ভবনটিতে নিরাপত্তা নিশ্চিত না করেই কাজ করার অভিযোগ স্থানীয়দের।
এলাকাবাসীর তথ্যমতে, কবির হোসেন সম্প্রতি একটি স্কুলের অভিভাবক প্রতিনিধি নির্বাচিত হয়েছেন কবির হোসেন। একজন শ্রমিক নেতা ও স্কুলের অভিভাবক প্রতিনিধি হয়েও একজন সাধারণ শ্রমিকের মৃত্যু নিয়ে প্রকাশ্যে এমন দেন দরবার মোটেও ঠিক হয়নি বলে জানিয়েছেন এলাকাবাসী।

তিনি প্রকাশ্যে মালিক পক্ষের হয়ে কথা বলেছেন। তার এমন মন্তব্যে আমরা হতাশ। ওদিকে কবির হোসেনকে নিয়ে ¯’ানীয় এলাকাবাসী নানা কথা বলতে শুরু করেছেন।

তারা বলেন, কবির হোসেন এক সময়ে ট্রাক ড্রাইভার ছিলেন। সাইলো খাদ্যগুদামকে কেন্দ্র করে বিভিন্ন উপায়ে আজ কোটি টাকার মালিক। এই টাকার বলেই বিত্তশালী ও রাজনীতিবিদদের সাথে গড়ে তুলেছেন সখ্যতা।

এরই ধারাবাহিকতায় যুক্ত হয়েছেন শ্রমিক লীগের রাজনীতিতে। রাজনীতিতে নতুন হলেও বাগিয়ে নিয়েছেন সিদ্ধিরগঞ্জ আদমজী আঞ্চলিক শ্রমিক লীগের সিনিয়র সহ সভাপতির পদ। বর্তমানে শ্রমিকলীগের এই কমিটি নিয়েও চলছে বিতর্ক।

উল্লেখ্য, গত বুধবার (১০ আগস্ট) দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে সিদ্ধিরগঞ্জের নাসিক ৫ নং ওয়ার্ডের আইয়ুব নগর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এদিকে ঘটনা¯’লেই ওই কিশোর শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে বলে জানা গেছে। নিহত ফাহিম কুমিল্লা জেলার নাঙ্গলকোট উপজেলার তারাচু গ্রামের মো: মনির হোসেনের ছেলে।

ফাহিম সিদ্ধিরগঞ্জের মিজমিজি পাগলাবাড়ী এলাকায় দুলাল মিয়ার ভাড়াটিয়া বাসায় পরিবারের সাথে বসবাস করতেন। খবর পেয়ে থানার উপ-পরিদর্শক আব্দুর রাজ্জাক নিহতের ভাড়া বাড়ীতে গিয়ে আইনি প্রক্রিয়া শেষ না করে এভাবে লাশ নিতে বাধা দেন।

এক পর্যায়ে অনেক দেন দরবারের পর নিহতের পিতার কোন অভিযোগ নেই নিশ্চিত হওয়ার পর আইনী প্রক্রিয়া শেষ করে গতকাল সন্ধ্যায় লাশ গ্রামের বাড়ি কুমিল্লাতে নিয়ে যাওয়া হয়।  

এ বিষয়ে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মশিউর রহমান পিপিএম বার বলেন, নিহতের পরিবারের কোন অভিযোগ না থাকায় অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে। তবে শ্রমিকের মৃত্যুতে ভবন মালিক কর্তৃপক্ষের কোন অবহেলা আছে কিনা তা খতিয়ে দেখা হবে।