শনিবার, ২৫ জুন ২০২২

|

আষাঢ় ১০ ১৪২৯

Advertisement
Narayanganj Post :: নারায়ণগঞ্জ পোস্ট

কলকাতা পৌর নির্বাচন

তৃণমূলের টিকিট পেলেন ২৩ সংখ্যালঘু

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১৯:৫১, ২৭ নভেম্বর ২০২১

তৃণমূলের টিকিট পেলেন ২৩ সংখ্যালঘু

প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করছেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়, সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায় ও সুব্রত বক্সি

কলকাতা: দীর্ঘ সময় ধরে নানা হিসেব নিকেশ শেষে শুক্রবার (২৬ নভেম্বর) রাতে কলকাতা করপোরেশন নির্বাচনে ১৪৪ আসনে প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করেছে মমতার তৃণমূল কংগ্রেস। এবার ‘এক ব্যক্তি-এক পদ’ এই প্রথা ভেঙে ৬ বিধায়ক ও এক সাংসদের উপর ভরসা রেখেছে ঘাসফুল শিবির।


চলতি বছর পশ্চিমবঙ্গে বিধানসভা নির্বাচনে তৃণমূল কংগ্রেস ক্ষমতা ধরে রাখতে পারার পর তৃণমূল কংগ্রেস ‘এক ব্যক্তি-এক পদ’ নীতি গ্রহণের সিদ্ধান্ত নিয়েছিল। কিন্তু কলকাতা পৌর নির্বাচনের প্রার্থী তালিকায় সে নিয়মে মানা হয়নি। ফলে পৌর নির্বাচনেও মনোনয়ন পেয়েছেন ৬ বিধায়ক। তারা হলেন বর্তমান মেয়র ও  বিধায়ক ফিরহাদ হাকিম, দেবাশিস কুমার, দেবব্রত মজুমদার ও অতীন ঘোষসহ আরও দু’জন। পাশাপাশি মনোনয়ন পেয়েছেন দক্ষিণ কলকাতার সাংসদ মালা রায়ও।

এবার শাসক দলের প্রার্থী তালিকায় নারী, যুব সমাজ ও সংখ্যালঘু সম্প্রদায়কে প্রাধান্য দেওয়া হয়েছে। সংখ্যালঘু প্রার্থী হয়েছেন ২৩ জন। তাদের মধ্যে ২ জন খ্রিষ্টান ও বাকিরা মুসলিম সম্প্রদায়ের। প্রার্থীদের মধ্যে ৪০ জন পুরুষ (৫৫ শতাংশ) ও নারী প্রার্থী ৪৫ জন (৪৫ শতাংশ)। পাশাপাশি তফশিলি জাতিভুক্ত প্রার্থী রয়েছেন ১৯ জন। গতবার তৃণমূল কংগ্রেসের ১২৬ জন কাউন্সিলর ছিল। এবার তাদের মধ্য থেকে ৮৭ জন মনোনয়ন পেয়েছেন। বাদ পড়েছেন ৩৯ জন।

শুক্রবার দুপুরেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কালীঘাটের বাড়িতে যান ভোট কুশলী প্রশান্ত কিশোর। এর কিছু পরেই সেখানে হাজির হল অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়সহ দলের শীর্ষ নেতারা। প্রার্থী তালিকা নিয়ে নেত্রীর সঙ্গে দীর্ঘ বৈঠক করেন তারা। এরপরই চূড়ান্ত প্রার্থী তালিকা অনুমোদন দেন দিদি। পরে তৃণমূল মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়, সাংসদ সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায় ও দলের রাজ্য সভাপতি সুব্রত বক্সি ১৪৪ ওয়ার্ডের প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করেন।

পার্থ চট্টোপাধ্যায় বলেন, মেয়র মুখ সামনে রেখে দল কলকাতা করপোরেশন ভোটের লড়াই করবে না। ভোটের ফলাফলের পরই মেয়র নির্বাচিত হবেন। যদিও দলীয় সূত্রের খবর, ফের কলকাতার মেয়র হতে চলেছেন ফিরাদ হাকিম। কিন্তু দলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের পছন্দের মুখ বাবুল সুপ্রিয়। ফলে রাজনৈতিক মহলের ধারণা এই দ্বন্দ্বের সমধান না হওয়ার কারণেই তৃণমূলের পক্ষ থেকে মেয়রের নাম ঘোষণা করা হয়নি।

অপরদিকে বামেরা এদিনও প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করেনি। তবে সিপিএমের চমক তাদের ‘রেড ভলেন্টিয়ার্সরা’। করোনা মহামারির সময়  রেড ভলেন্টিয়ার্সরা সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছিলেন সমাজের সর্বস্তরের মানুষের কাছে। সেই যুব সমাজ থেকে ২০ থেকে ২৫টি ওয়ার্ডের প্রার্থী করা হতে পারে। ২০২৪ এর লোকসভা নির্বাচনের আগে  শহরের মানুষের মন যাচাই করে নিতে চাইছে রাজ্য সিপিএমের একাংশ।