মঙ্গলবার, ০৪ অক্টোবর ২০২২

|

আশ্বিন ১৮ ১৪২৯

Advertisement
Narayanganj Post :: নারায়ণগঞ্জ পোস্ট

স্বামী-স্ত্রীর সম্পর্কে ভাঙন ধরাতে পারে সোশ্যাল মিডিয়া!

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

প্রকাশিত: ১৬:৪৮, ৬ ফেব্রুয়ারি ২০২২

স্বামী-স্ত্রীর সম্পর্কে ভাঙন ধরাতে পারে সোশ্যাল মিডিয়া!

প্রতীকী ছবি

বিয়ে করার পরই দুটি মানুষ একসঙ্গে সমাজিকভাবে পাশাপাশি থাকার ছাড়পত্র পান। অথ্যাৎ একটি সম্পর্কের পূর্ণতা হল বিয়ে।

বিয়ের পর শুরু হয় এক অন্য জীবন। এই জীবনের চ্যালেঞ্জ হয় ভিন্ন। মানুষ একটু অন্যভাবে বাঁচতে শুরু করেন। এক্ষেত্রে একে অপরের সঙ্গে কাটানো সময় হঠাৎ করেই বেড়ে যায়।

বিশেষজ্ঞদের কথায়, আপনি লাভ ম্যারেজ করুন আর অ্যারেঞ্জ ম্যারেজই করুন না কেন, বিয়ের পর আপনাকে একটু জীবনে বদল আনতেই হবে। কারণ এই সময়টায় একটি মানুষ অপর একটি মানুষকে একদম অন্যভাবে চিনতে শুরু করে। দৈনন্দিন জীবনে তারা হয়ে ওঠেন সঙ্গী। অনেক বিষয়ই থাকে নতুন। কাঁধে চেপে যায় কিছু দায়িত্ব। তাই প্রতিটি মানুষকে থাকতে হয় সতর্ক।

তবে বিয়ের পরও বহু মানুষ সোশ্যাল মিডিয়া নির্ভর হয়ে পড়েন। পান থেকে চুন খসলেও তারা আপডেট দেন। তবে বিয়ের পর এই অভ্যাস থাকলে কিন্তু দেখা দিতে পারে সমস্যা। এক্ষেত্রে সঙ্গীর মনে লাগতে পারে বিরাট আঘাত। এ সমস্যার সমাধানও রয়েছে।

আসুন জেনে নেই-

সব সময় সোশ্যাল মিডিয়ায় নয়: কিছুটা সময় সোশ্যাল মিডিয়ায় কাটানো যেতেই পারে। তবে অনেকের অভ্যাস আছে সবসময় সোশ্যাল মিডিয়ায় কাটোনোর। তারা ঘণ্টার পর ঘণ্টা সোশ্যাল মিডিয়ায় কাটিয়ে দিতে পারেন। এই অভ্যাস আপনার সামনে থাকা সঙ্গীর ভালো না লাগাই স্বাভাবিক। কারণ আপনি তার সঙ্গে থাকা সত্ত্বেও সোশ্যাল মিডিয়ায় সময় কাটাচ্ছেন। তাই এই বিষয়টি নিয়ে সতর্ক থাকুন।

সঙ্গীর পোস্টে লাইক, কমেন্ট করুন: অন্য সবার পোস্টে আপনার লাইক রয়েছে। এমনকী কোনও কোনও ক্ষেত্রে করে ফেলছেন কমেন্টও। তাহলে সঙ্গীর পোস্ট বাদ যাবে কেন। তার পোস্টেও লাইক, কমেন্ট করুন।

সঙ্গীর পোস্টে লাইক দেখে জ্বলবেন না: আপনার পোস্টে লাইক না পড়তেই পারে। তাই বলে, আপনার সঙ্গীর পোস্টে লাইক, কমেন্ট দেখে জ্বলবেন না। এর থেকে জন্ম নেওয়া হিংসার সঙ্গে লড়াই করা সহজ নয়।

সঙ্গীর সঙ্গে ফটো দিন: সোশ্যাল মিডিয়ায় একার ছবি দিয়ে অনেক লাইক, কমেন্ট কুড়িয়েছেন। এবার সঙ্গীর সঙ্গে ফটো দিন। তবেই তিনি বুঝবেন যে আপনি তার খেয়াল রাখেন। তার কথা চিন্তা করেন।

সঙ্গীর ফোন চেক করবেন না: অনেকেই গোয়েন্দা হতে চান। তাই সঙ্গীর মোবাইলের নানা মেসেজ তারা ঘেটে থাকেন। যদিও এই অভ্যাস বিরাট সমস্যা তৈরি করতে পারে। এমনকী দেখা দিতে পারে সম্পর্কে ফাটল। তাই এ কাজ করা থেকে দূরে থাকুন।