শুক্রবার, ২১ জুন ২০২৪

|

আষাঢ় ৭ ১৪৩১

Advertisement
Narayanganj Post :: নারায়ণগঞ্জ পোস্ট

মদিনা: নীরব এক শহর

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

প্রকাশিত: ১৬:২৩, ১১ মার্চ ২০২৪

মদিনা: নীরব এক শহর

প্রতীকী ছবি

সৌদি আরবের বিখ্যাত শহর মদিনা। আরবিতে বলা হয় ‘মদিনা মুনাওয়ারা’।

এর মানে হলো ‘আলোকিত নগরী’। এখানের মাটিতে শায়িত আছেন মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সা.)। আর যে শহরে তিনি শায়িত আছেন, তার প্রতি সম্মান জানাতেই এই শহরে কেউ অযথা শব্দ বা কোলাহল করেন না। এখানে সবাই ভাবগাম্ভীর্যের সঙ্গে চলাফেরা করে থাকেন।

বিদেশ থেকে মদিনা বিমানবন্দরে কেউ প্রবেশ করলে ডিসপ্লেতে একটি বাক্য সবার চোখে পড়বে। সেটি হলো- ‘আপনার কণ্ঠের পার্থক্যই ইঙ্গিত দেবে যে আপনি মদিনায় আছেন’। হ্যাঁ, এই শহরে প্রতিদিনই সারা বিশ্ব থেকে লাখ লাখ মুসলমান আসছেন। মসজিদে নববীতে নামাজ পড়ছেন। ইবাদত বন্দেগি করছেন। প্রিয় নবী হযরত মুহম্মদ (সা.) এর কবর জিয়ারত করছেন। রাস্তায় বের হলেই লাখ লাখ মানুষের দেখা মিলবে। তবে কোথাও কোনো টু শব্দ নেই।

বিগত কয়েক দিন ধরে মদিনার অলিগলি ঘুরে দেখা যায়, সব জায়গায় মানুষের ভিড়। বিশেষ করে মসজিদে নববী এলাকায় সারা বিশ্বের লাখ লাখ মুসলমানদের পদচারণা। আর নামাজের ওয়াক্তে রাস্তা ঘাটে ভিড় আরও বেড়ে যায়। নামাজের সময় হলে লাখ লাখ মানুষ মসজিদে নামাজ পড়তে ছুটে যান।

মদিনার রাস্তায় চলাচল করা গাড়ি থেকেও কোনো ধরনের হর্নের শব্দ শোনা যায় না। কাউকে রাস্তা পার হতে দেখলে চালকরা হর্ন না দিয়ে গাড়ি ব্রেক করে দাড়িয়ে যান। সারা বিশ্বের লোক এখানে আসেন বলেই তাদেরকে সম্মান দিয়ে চালকরা ধীরে ধীরে গাড়ি চালান।

এছাড়া মদিনার রাস্তাঘাটও খুব পরিষ্কার। কোথাও কোনো ময়লা আবর্জনা চোখে পড়ে না।

মদিনা শহরে এই নীরবতা নিয়ে জানতে চাইলে এখানে বর্তমানে অবস্থানরত বাংলাদেশ ইসলামি বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী অধ্যাপক ও ইসলামী চিন্তাবিদ ড. মুহম্মদ মতিউল ইসলাম বাংলানিউজকে বলেন, সাহাবারা সেই আমল থেকেই মহানবীর সামনে আসলে উঁচু স্বরে কথা বলতেন না। সেই রেশ ধরেই মদিনার বাসিন্দারা এখনও পরস্পর উচ্চ স্বরে কথা বলেন না। এখানে কেউ অযথা শব্দও করেন না। সবাই যে যার কাজ নীরবে নিভৃতে করে থাকেন।