শনিবার, ১৩ আগস্ট ২০২২

|

শ্রাবণ ২৮ ১৪২৯

Advertisement
Narayanganj Post :: নারায়ণগঞ্জ পোস্ট

তার কোন লোভ লালসা যে নেই তা প্রমানিত : বাবু

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

প্রকাশিত: ২৩:৫৭, ২৮ জুন ২০২২

তার কোন লোভ লালসা যে নেই তা প্রমানিত : বাবু

নজরুল ইসলাম বাবু

নারায়ণগঞ্জ-২ আসনের সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম বাবু বলেছেন, সাংবাদিক নেতাদের উদ্দেশ্য বলতে চাই আমরা যারা উপজেলা পর্যায়ে কাজ করি। সেখানে এই বোগাস সাংবাদিকদের যে দৌড়ঝাপ সেটা একটু থামানোর চেষ্টা করুন। আমরা পারছি না, পারবোও না। এতে আপনাদের সম্মানহানি হয়। সাংবাদিকতা আয়নার মত স্বচ্ছ। শুধু সাংবাদিকদের জন্যে যে কত মানুষ তাদের সম্পদ রক্ষা করতে পারে এটা মানুষ জানে। এই সাংবাদিকদের মাধ্যমে হাইকোর্ট সুপ্রীম কোর্ট ও দেশের প্রধানমন্ত্রীকে মোকাবিলা করা যায় তা আমি জানি। আমি তখন জেলেবন্দি। আর্সেনিকযুক্ত পানি খেতে খেতে আমি অসুস্থ হয়ে পড়েছিলাম। সেদিন সাংবাদিকরাই এসব তুলে ধরেছিলেন। সুতরাং আমি আপনাদের কাছে ঋণী। 

মঙ্গলবার (২৮ জুন) বিকেলে জেলা গণগ্রন্থাগার মিলনায়তনে এনইউজের পক্ষ থেকে ৫ জন সাংবাদিককে সাংবাদিক কল্যান তহবিল থেকে প্রাপ্ত ৯ লাখ টাকার চেক বিতরণ এবং ফল উৎসব অনুষ্ঠিত হয়। এসময় সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে একথা বলেন তিনি। 

তিনি বলেন, আমি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর প্রতি শ্রদ্ধা জানাই। যে মানুষটি নতুন নতুন কিছু আমাদেরকে দিয়েছেন সাংবাদিকদের নিয়ে ভেবেছেন তাকে ধন্যবাদ। যারা সংগ্রাম পত্রিকায় কাজ করেন তারাও বলেছেন পদ্মাতে পাড়ি দেয়ার সময়ও তিনি বলছিলেন আমার সাংবাদিকরা কই তারা খেয়েছে। যখন গাড়ি বহর যেত তিনি সবসময় তাদের খোঁজ খবর নিতেন। আমি তখন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক তিনি বলতেন বাবু যাও সাংবাদিকদের ডেকে নিয়ে আসো। দ্যাখো তারা খেয়েছে কীনা। 

অন্যরা যেমন বেগম জিয়া, হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ তাদের সে শিক্ষা ছিল না। তিনিই একমাত্র রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বের বহিঃপ্রকাশ।  তিনি বঙ্গবন্ধুর কন্যা হয়েই জন্মেছেন। তার কোন লোভ লালসা যে নেই তা প্রমানিত। সবাই রাজা বাদশার কন্যা হতে চান। এখানেই তার সাথে সবার পার্থক্য। 

আলেচ্য বিষয় নিয়ে আলোচনা করা রাষ্ট্রের বিরোধিতা না। এটা সরকারের বিরোধিতা না। রাষ্ট্রের গঠনমূলক কাজের বিরোধিতা করা কিছু সাংবাদিক জন্মগ্রহণ করেছেন। তারা সাংবাদিকতা কী এটা আদৌ বুঝতে চায় না। আমি বলব তাদের মধ্যে বোঝার অভাব আছে। আপনারা যখন কথা বলেন তখন দুঃখ হয়। বঙ্গবন্ধু কন্যার প্রসংশার শেষ নেই। তার বদনাম যারা করবে তারা হতভাগা। কারণ এমন একজন নেত্রী তিনি তার বদনাম করার কিছু নেই। আমি তার মধ্যে আর্টিফিশিয়াল কিছু দেখি না। 

প্রধানমন্ত্রী আপনাদের জন্য আরও করবেন। আমরাও আশা করি। তবে এটা বাস্তবায়ন করতে আমাদের সকলকে তার পাশে থাকতে হবে। 

আমার এখন কাজ করার সময়। আইভী আপা এখানে কাজ করছেন। তিনি মাত্র কয়েক লক্ষ ভোট পেয়েছেন। তবে বাংলাদেশের আঠারো কোটি লোক চেয়েছে তিনি জিতুক। শুধু কিছু লোক চায়নি। উনার শত্রু কারা আপনারাও জানেন আমিও জানি। সব খেলা খেলা নয় সব কথা কথা নয়। 

সাংবাদিকদের একটা সমস্যা আছে। এটা নারায়ণগঞ্জের সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে বলছি না। নেতাদের উদ্দেশ্যে বলছি। আজ আমিও সাংবাদিক ওই লোকটাও সাংবাদিক যে লেখাপড়া জানে না কিন্তু পুলিশের ইনফর্মার হিসেবে কাজ করে। এটা আমাদের জন্য প্রতিঘাত। একটা ভাল কাজে তারা আগেই যেয়ে নানান কথা বলে মামলা উল্টো করে ফেলে। এটা  আমরা কেউ চাই না। নারায়ণগঞ্জের অরিজিনার সাংবাদিকেরা খুব স্মার্ট। তারা এস্টাবলিশড্। যারা এর আওতায় তারা আজ পর্যন্ত অভিযুক্ত হয়নি। আইভী আপা আনোয়ার ভাইসহ অনেকেই মাঝে মাঝে ক্ষেপে যান শুধু ক্ষেপেন না মাননীয় প্রধানমন্ত্রী। 

বঙ্গবন্ধু কন্যা সমস্যা আবিষ্কার করেন আবার সমস্যা সমাধান করেন। আমি দেখেছি নির্ভয়ে তিনি কাজ করেন। সিটি করপোরেশনকে যিনি নেতৃত্ব দিচ্ছেন তার পাশেই থাকব আমরা। আমরা নারায়ণগঞ্জকে একটা সুন্দর আধুনিক এবং প্রাকৃতিক দৃশ্যমান পরিকল্পনাকে যেন কাছাকাছি নিয়ে যাওয়া যায় সেজন্য আমরা কাজ করবো।