রোববার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪

|

চৈত্র ৩০ ১৪৩০

Advertisement
Narayanganj Post :: নারায়ণগঞ্জ পোস্ট

বিএনপিকে কেউ অফিস ভাড়া দিতে চায়না : টিপু 

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

প্রকাশিত: ১৭:০৮, ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

বিএনপিকে কেউ অফিস ভাড়া দিতে চায়না : টিপু 

ফাইল ছবি

বিএনপিকে কেউ অফিস ভাড়া দিতে চায়না বলে মন্তব্য করেছেন নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির সদস্য সচিব অ্যাডভোকেট আবু আল ইউসুফ খান টিপু।

বৃহস্পতিবার (২৯ ফেব্রুয়ারি) টানা ৭০ মাস ধরে কার্যালয়হীন নারায়ণগঞ্জ বিএনপির কিভাবে চলছে এবং কেন দলটির কার্যালয় এতদিনেও নেয়া হয়নি সে বিষয়ে জানতে চাইলে একথা বলেন তিনি।

এক দুই মাস নয় টানা ৭০ মাস ধরে কার্যালয়হীন অবস্থায় ঘরে এবং হোটেলে বৈঠক ও সভার মাধ্যমে দলীয় কার্যক্রম পরিচালনা করতে হয়েছে নারায়ণগঞ্জ বিএনপিকে। রাজনীতিতে ব্যাপক প্রভাব বিস্তার করা বিএনপির জেলা কিংবা মহানগর কার্যালয় নেই প্রায় ৭০ মাস ধরে।

দীর্ঘ এ সময়ে তাদের নেওয়া হয়নি কোনো সমন্বিত অস্থায়ী কার্যালয়ও। নেতারা বলছেন, কার্যালয় নিতে উদ্যোগ নেয়া হলেও বিএনপিকে কেউ কার্যালয় ভাড়া দিতে চাচ্ছেনা, তবুও তারা চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন একটি দলীয় কার্যালয় ভাড়া নেয়ার জন্য। তবে দলটির একটি বড় অংশের নেতাকর্মীরা এও বলছেন, ভাড়া কেউ দিতে চায়না নয় বরং নেতারা ভাড়া নিতে চাননা। নিজেরা গ্রুপিং করে নানা সময়ে দলে বিভাজন তৈরী করে রেখে এহেন অবস্থান কার্যালয় নিলে সেখানে ক্ষোভের প্রকাশও হতে পারে তাই কার্যালয় নেয়া থেকে আপাতত বিরত থাকছেন তারা।

২০১৭ সালের মার্চ মাসে নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপি কার্যালয়টি ভেঙে দেওয়া হয়। কার্যালয়টি না ভাঙতে আদালতে মামলা করেছিল বিএনপি। সে মামলায় নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন (নাসিক) জয়ী হয়। বর্তমানে সেখানে বহুতল ভবন তৈরি হয়েছে। বলা হয়েছে, সেটি সম্পন্ন হলে সেখানে বিএনপির অনুরূপ কার্যালয় বুঝিয়ে দেবে নাসিক অথচ সেই কার্যালয়ের স্থানেই চলছে দোকান বরাদ্দের কাজ।

মহানগর বিএনপির আহবায়ক অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন খান ও সদস্য সচিব অ্যাডভোকেট আবু আল ইউসুফ খান টিপু দুজনেই আইনজীবী হওয়ায় তাদের চেম্বারেই আপাতত রাজনৈতিক কাজ পরিচালনা করছে মহানগর বিএনপির। অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন খান নারায়ণগঞ্জ ক্লাব মার্কেটের তৃতীয়তলায় নিজস্ব কার্যালয়টি রাজনৈতিক কাজে ব্যবহার করছেন। সেখানে তিনি তার অনুগত নেতাকর্মীদের নিয়ে বসে দলীয় বৈঠক ও সভা করেন।

বিএনপির নেতাকর্মীরা প্রায় প্রতিদিন নানা মামলায় হাজিরা দিতে আদালতে আসেন। সেখানে দলের আহবায়ক ও সদস্য সচিবদের পেয়ে আপাতত আদালত এলাকায় বিভিন্ন আইনজীবীর চেম্বারে তারা দলীয় কার্যাক্রম ও সভা করে থাকেন।

এদিকে জেলা বিএনপির পক্ষ থেকে এখন পর্যন্ত কোন অস্থায়ী কার্যালয়ও ব্যবস্থা করা হয়নি। তারা বিভিন্ন হোটেল, রেস্তোরায় দলীয় সভা সমাবেশ করে যাচ্ছেন।

মহানগর বিএনপির সদস্য সচিব অ্যাডভোকেট আবু আল ইউসুফ খান টিপু জানান, আমরা চেষ্টা করে যাচ্ছি। আমরা অফিস খুঁজছি। আমাদের এখন কেউ অফিস ভাড়া দিতে চায়না। সুবিধাজনক স্থানে অফিস পেলে আমরা নেব। আপাতত সংগঠন গোছাতে কাজ করছি আমরা।