বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪

|

জ্যৈষ্ঠ ২৮ ১৪৩১

Advertisement
Narayanganj Post :: নারায়ণগঞ্জ পোস্ট

ঈদের আগে নৌ শ্রমিকদের বকেয়া বেতন বোনাস পরিশোধের দাবিতে নারায়ণগঞ্জে মানববন্ধন ও মিছিল

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

প্রকাশিত: ২২:৫৩, ৮ জুন ২০২৪

ঈদের আগে নৌ শ্রমিকদের বকেয়া বেতন বোনাস পরিশোধের দাবিতে নারায়ণগঞ্জে মানববন্ধন ও মিছিল

ফাইল ছবি

বাংলাদেশ জাহাজী শ্রমিক ফেডারেশন ও বাংলাদেশ নৌযান শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়নের কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক সবুজ শিকদার বলেছেন, ২০২৩ সালের ৩০ মার্চ সরকার নৌ শ্রমিকদের মজুরী বৃদ্ধি করে একটি গেজেট ঘোষণা করে। ঘোষিত গেজেট অনুযায়ী ২০১৬ সালের মজুরী কাঠামো থেকে নৌ শ্রমিকদের মজুরী ৬০ শতাংশ বৃদ্ধি পাবে। ওই গেজেট অনুযায়ী নৌ শ্রমিকদের মজুরী কাঠামো ২০২২ সালের নভেম্বর থেকেই কার্যকর হওয়ার কথা। অথচ ২০ মাস পেরিয়ে গেলেও অদ্যাবধি নৌ শ্রমিকদের নতুন মজুরী কাঠামো বাস্তবায়ন হয়নি। শ্রমিকদের রক্তঘামের বিনিময়ে যারা চোরাই পথে ব্যবসা করেছে রাজস্ব ফাঁকি দিয়ে সম্পদের পাহাড় গড়েছে ওইসব মালিকরা সরকার ঘোষিত গেজেটকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখাচ্ছে। পুজিপতি রক্তচোষা মালিকদের কাছে নৌ শ্রমিকদের আর্তনাদ পৌঁছায় না। শ্রমিকদের মজুরী কাঠামো ঘোষণা করলেও শ্রম মন্ত্রণালয় ও নৌ মন্ত্রণালয় এ বিষয়ে কোন কথা বলছেনা। এমনকি আমাদের নৌ প্রতিমন্ত্রী শ্রম প্রতিমন্ত্রীও নৌ শ্রমিকদের দু:খের কথা বলেন না। আজকে দেশের শ্রমিকরা ভারতে গেলে তাদেরকে কিনারায় ভিড়তে দেয়া হয়না। অথচ ভারতের কোন জাহাজ বাংলাদেশে আসলে তাদের শ্রমিকদের দেখলে মনে হয় তারা যেন নানার বাড়িতে বেড়াতে আসছে। আজকে সারাদেশে নৌপথকে প্রকাশ্য দিবালোকেই গলাটিপে হত্যা করা হচ্ছে। নদী দখল করা হচ্ছে। কিছু কিছু স্পটে নৌ পুলিশের পরিচয়ে চাঁদাবাজি হচ্ছে। অনেক স্থানে বিআইডব্লিউটিএ’র টোল ইজারার নামে বেপরোয়াভাবে চাঁদাবাজি হচ্ছে। আমরা নৌ পুলিশ ও বিআইডব্লিউটিএ’র উদ্দেশ্যে বলছি অযথা শ্রমিকদের উপর জুলুম নির্যাতন করবেন না।

শনিবার ৮ জুন বিকেলে গেজেট অনুযায়ী জাহাজী শ্রমিকদের ঈদের আগে বকেয়া বেতন বোনাসসহ সকল পাওনা পরিশোধ করা এবং নৌ শ্রমিকদের উপর জুলুম নির্যাতন হয়রানি মিথ্যা মামলা চাঁদাবাজি বন্ধের দাবিতেনারায়ণগঞ্জ শহরের ৫নং ঘাট পোর্ট এরিয়ায় বাংলাদেশ জাহাজী শ্রমিক ফেডারেশনের উদ্যোগে আয়োজিত বিক্ষোভ মিছিল পূর্বক মানববন্ধনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন সবুজ শিকদার।

শ্রমিকদের উদ্দেশ্যে সবুজ শিকদার আরো বলেন, যেসব জাহাজ মালিকরা ঈদের পূর্বে শ্রমিকদের বকেয়া বেতন বোনাস পরিশোধ করবেনা শ্রমিকদের প্রতি অনুরোধ আপনারা ওইসব মালিকদের জাহাজ আর চালাবেন না। আমরা আপনাদের ন্যায্য দাবির পক্ষে আছি থাকবো ইনশাল্লাহ। আজকে টাকার অভাবে পরিবারের চাপে নৌ শ্রমিকরা আত্মহত্যা করলে এর চেয়ে বেদনাদায়ক আর কিছু হতে পারেনা। যারা কালোবাজারি সরকারের ট্যাক্স ফাঁকি দেয় শ্রমিকদের রক্তচুষে সম্পদের পাহাড় গড়ে তাদের বিরুদ্ধে আগামী দিনে দুর্বার আন্দোলন গড়ে তুলতে আপনাদের ঐক্যবদ্ধ থাকার আহবান জানাচ্ছি।

ভারত প্রটোকল লাইটারেজ শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম দয়ালের সভাপতিত্বে ও বাংলাদেশ জাহাজী শ্রমিক ফেডারেশনের প্রচার সম্পাদক কবির হোসেনের সঞ্চালনায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ নৌযান শ্রমিক ও কর্মচারী ইউনিয়নের কেন্দ্রীয় কমিটির সহ সম্পাদক আক্তার হোসেন, চট্টগ্রাম লাইটারেজ শ্রমিক ইউনিয়নের কার্যকরী সভাপতি আবু তাহের মাস্টার, বাংলাদেশ নৌযান শ্রমিক ও কর্মচারী ইউনিয়নের কাওটাইল শাখার সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন, খুলনা শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক এম কে মনির প্রমুখ।