মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪

|

আষাঢ় ৩১ ১৪৩১

Advertisement
Narayanganj Post :: নারায়ণগঞ্জ পোস্ট

ঈদুল আজহা: সিদ্ধিরগঞ্জে হামজার মূল্য হাঁকা হচ্ছে অর্ধকোটি

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

প্রকাশিত: ২২:৪৪, ১২ জুন ২০২৪

ঈদুল আজহা: সিদ্ধিরগঞ্জে হামজার মূল্য হাঁকা হচ্ছে অর্ধকোটি

ফাইল ছবি

দুয়ারে কড়া নাড়ছে পবিত্র ঈদুল আজহা। ঈদ উপলক্ষে ধর্মপ্রাণ মুসলমানেরা পছন্দের পশু ক্রয় করার উদ্দেশ্যে বিভিন্ন পশুর হাট ও খামারে ভীড় করছেন। আর প্রতিবারের ন্যায় এবারও ক্রেতাদের আকৃষ্ট করতে হাট কিংবা খামারে লালন-পালন করা গরুগুলোর বিভিন্ন নামে নামকরণ করছেন মালিকরা। তবে, আবার নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জের আলোচনায় রয়েছে ৫০ লাখের 'হামজা'। যা দেখতে ভীড় করছে অসংখ্য দর্শনার্থী।

সিদ্ধিরগঞ্জের এবার গরুর হাটের অনুমতি পেয়েছেন ৮টি। ইতিমধ্যে হাট কাঁপাতে সবগুলো হাটে গরু পৌছেও গেছেন। যা ক্রেতাদের আনাগোনায় লক্ষ্যনীয়। এদিকে আর কে এগ্রো ফার্মের তিন আকর্ষণে এখন পর্যন্ত আলোচনার শীর্ষে রয়েছে। 

শিমরাইল-আদমজী-চাষাঢ়া সড়ক ঘেঁষা ধনকুন্ডা গোদনাইল এলাকার আর কে এগ্রো ফার্ম গেলো কয়েকবছর যাবত গরু বিক্রিতে বিশেষ নাম কামিয়েছেন। এবার ফার্মটির খামারের মূল আকর্ষণ হচ্ছে আমেরিকা থেকে আমদানিকৃত ব্রাম্মা জাতের একটি গরু। যার নাম দেওয়া হয়েছে 'হামজা'। এক হাজার ১'শ কেজি ওজনের (প্রায় ৩০ মণ) হামজার দাম হাঁকা হচ্ছে ৫০ লাখে। অর্ধকোটির এই হামজা গত বছর ঢাকায় আয়োজিত ক্যাটেল এক্সপোর প্রদর্শনীতে অংশগ্রহণ করে চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন বলে জানিয়েছে আরকে এগ্রো ফার্মের তত্ত্বাবধায়ক সামাদ মিয়া। তার ভাষ্যমতে, এখন পর্যন্ত ৩৫ লাখ মূল্য উঠেছেন অর্ধকোটির 'হামজার'

৬ ফুট উচ্চতার আকর্ষণীয় এই হামজাকে দেখতে প্রতিদিন আরকে এগ্রো ফার্মটিতে সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত ক্রেতারা ভীড় জমান। সেখানে ঘুরে নিজেদের সাধ্যমত পছন্দের পশু ক্রয় করার পাশাপাশি ৫০ লাখ টাকার হামজার সঙ্গে সেলফিও তোলেন মানুষেরা।

আর কে এগ্রো ফার্ম গেলো বছরের মতো এই ঈদেও বাংলা চলচ্চিত্রের দুই তারকার নামে  গরুর নাম দিয়েছেন। তারকা নামখ্যাতরা হলেন শাকিব খান ও জায়েদ খান। এ গরু দুটি ক্রেতাদের দৃষ্টি আকর্ষন করেছেন। খামার কর্তৃপক্ষ শাকিব খানের দাম ১৫ লাখ টাকা আর জায়েদ খানের দাম ১৪ লাখ টাকা বললেও অবশেষে ১২ লাখ টাকায় “শাকিব খান” কে বিক্রি করা হয়েছে । তবে জায়েদ খান এখনও অবিক্রিত রয়েছে।

জানাগেছে, শাকিব খান নামের গরুটি সাড়ে ৩ বছরের শাহীওয়াল জাতের। এর ওজন ২৫ মণ। সাদা ধুসর রঙের গরুটি লম্বায় প্রায় ১০ ফুট, উচ্চতায় ৫ ফুট। লাইভ ওয়েট হিসেবে এর কেজি ১ হাজার ৫০০ টাকা

ফার্মটি ঘুরে দেখা যায়, সেখানে বিভিন্ন জাতের বড়, মাঝারি ও ছোট সাইজের প্রায় ছয় শতাধিক গরু রয়েছে। মহিষ রয়েছে ষাটটি ও খাসি রয়েছে ৫০টি। আকারভেদে গরুর দামেরও ভিন্নতা রয়েছে। অপরদিকে মহিষ পাওয়া যাচ্ছে সাড়ে তিন লাখ থেকে পাঁচ লাখ টাকার মধ্যে। খাসির দাম চাওয়া হচ্ছে এক লাখ থেকে পৌনে দুই লাখ টাকা পর্যন্ত।

ফার্মে গরু দেখতে আসা কয়েকজন দর্শনার্থী সঙ্গে কথা বললে তারা বলে, হাতে যথেষ্ট সময় থাকায় বিভিন্ন হাটে ঘুরে হামজার নাম শুনে দেখতে এসেছেন তারা। ক্রয় করতে না পারলেও ছবি তুলে আনন্দ উপভোগ করছেন। 

আরকে এগ্রো ফার্মের তত্ত্বাবধায়ক সামাদ মিয়ার কাছে চড়া মূল্যের এই হামজার বিশেষত্ব জানতে চাইলে তিনি বলেন, হামজা দেখতো বড় আকৃতির। ওজনে ১ হাজার কেজিরও বেশি। এবং এই গরুটি দেশব্যাপী আলোচিত। গতবছর

ঢাকায় আয়োজিত ক্যাটেল এক্সপোর প্রদর্শনীতে অংশগ্রহণ করে চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন এটি। 

ক্রেতারা এখন পর্যন্ত হামজার মূল্য কতো টাকা বলেছেন এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ৩৫ লাখ মূল্য উঠেছে এখন পর্যন্ত।

তাদের ফার্মে দেশি, শাহি ওয়াল, হরিয়ানা, সিন্ধি ও ব্রাম্বাসহ বিভিন্ন জাতের ছয় শতাধিক গরু রয়েছে বলেও জানান তিনি।