রোববার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪

|

চৈত্র ৩০ ১৪৩০

Advertisement
Narayanganj Post :: নারায়ণগঞ্জ পোস্ট

নারায়ণগঞ্জে ‘বিস্ফোরণ’: দুবছর আগেও ওই ভবনে ঘটেছিল অগ্নিকাণ্ড

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

প্রকাশিত: ১৮:২৩, ১৮ মার্চ ২০২৩

নারায়ণগঞ্জে ‘বিস্ফোরণ’: দুবছর আগেও ওই ভবনে ঘটেছিল অগ্নিকাণ্ড

ফাইল ছবি

নারায়ণগঞ্জ শহরের নিতাইগঞ্জে একটি পুরাতন ভবনে ‘বিস্ফোরণের পর’ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় একজন নিহত ও আরও ৯ জন আহত হয়েছেন। ধসে পড়েছে ভবনের পেছনে দেওয়াল। ভবনের দোতলার বারান্দার অংশ ছিটকে পাশের সড়কে পড়েছে। ফায়ার সার্ভিস ও পুলিশের কর্মকর্তারা প্রাথমিকভাবে ধারণ করছেন, গ্যাসলাইন থেকেই এই দুর্ঘটনা ঘটেছে। একই ভবনে দুই বছর আগেও অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছিল বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা।

শনিবার (১৮ মার্চ) সকাল ৯টায় ডালপট্টি এলাকায় নাজমা ফ্লাওয়ার মিলের পাশের ভবনে এ ঘটনা ঘটেছে। দেড় ঘণ্টার চেষ্টায় ফায়ার সার্ভিসের ছয়টি ইউনিট আগুন নিয়ন্ত্রণে এনেছে।

স্থানীয়রা জানান, ইলিয়াস দেওয়ান নামে এক ব্যক্তির মালিকানাধীন এই ভবনে প্রায় দুই বছর আগেও একবার অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছিল। তারা বলছেন, ভবনটি খুবই পুরাতন ও জরাজীর্ণ। ফলে ভবনটি আরও অনেক আগে পরিত্যাক্ত ঘোষণা করা উচিত ছিল। 

অগ্নিদুর্ঘটনার প্রাথমিক কারণ উল্লেখ করে নারায়ণগঞ্জ ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের জোন-১ এর উপ সহকারী পরিচালক ফখর উদ্দিন আহাম্মদ বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘এই ঘটনায় ১০ জনকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। নিহতের বিষয় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বলতে পারবে। এই ঘটনায় ভবনের পেছনের দেওয়াল ধসে পড়েছে। ভবনটিতে ডাল, ছোলা ও আটাসহ বিভিন্ন পণ্য রাখার গুদাম ছিল। ওই ভবনে গ্যাসের লাইন ছিল। ধারণা করা হচ্ছে, গ্যাস লাইন থেকে এই দুর্ঘটনা ঘটেছে। তদন্তের পরে নিশ্চিত করে বলা সম্ভব হবে। তাছাড়া দুই বছর আগেও এই ভবনে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে ছিল।

বিস্ফোরণের ফলে ভবন ধসে পড়েছে উল্লেখ করে নারায়ণগঞ্জ ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের জোন-২ এর উপ সহকারী পরিচালক আলমগীর হোসেন বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, বিস্ফোরণ হয়ে ভবনের একটা অংশ কলাপস (ধসে) করেছে। এটা দীর্ঘদিনের পুরাতন একটা ভবন। ভবনের নিচ তলায় বিভিন্ন পণ্যের গুদাম ও দোকান ছিল। আর দোতলায় শ্রমিকরা বসবাস করতেন। ভবনে গ্যাসের লাইন পাওয়া গেছে। আগুন লাগার কারণ ও ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ তদন্ত করে পরে বলা সম্ভব হবে।

নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার গোলাম মোস্তফা রাসেল বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘এখানে বিস্ফোরণের কোনও ঘটনা ঘটেনি। রাজধানী ঢাকায় যেমন বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে, তেমন কোনও ঘটনা এখানে ঘটেনি। এটা একটা অগ্নিকাণ্ড। ওই ভবনের গ্যাসের লাইন ছিল। ধারণা করা হচ্ছে, গ্যাসের লাইন থেকে এই ঘটনা ঘটেছে। এই ঘটনায় একজন মারা গেছেন।’ 

এর আগে সকাল ৯টায় বিস্ফোরণের পর আগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। এতে আওলাদ হোসেন (৪০) নামে একজন শ্রমিক নিহত হয়েছেন। একই ঘটনায় আরও ৯ জন আহত হয়েছেন। 

স্থানীয়রা জানায়, আজ সকালে হঠাৎ বিকট শব্দে বিস্ফোরণ হয়। পরে ওই ভবনে আগুন ধরে যায়। এ সময় তিন জন দগ্ধ হন। তাদের উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে পাঠানো হয়। এ ছাড়া বিস্ফোরণের সময় ভবনের দেয়াল ধসে পড়েছে ও পলেস্তার খসে পড়েছে। এতে পথচারীসহ আশপাশের সাত জন আহত হন।

নিহত ও আহতের বিষয়টি নিশ্চিত করে নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনিচুর রহমান বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, এই ঘটনায় দগ্ধ আওলাদ ঢামেক হাসপাতালে মারা গেছেন। এছাড়া আরও দুই জন দগ্ধ ও সাত জন আহত হয়েছেন।