বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

|

ফাল্গুন ৯ ১৪৩০

Advertisement
Narayanganj Post :: নারায়ণগঞ্জ পোস্ট

রনির যে ছবি ফেসবুকে ভাইরাল, আলোচনা সমালোচনা

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

প্রকাশিত: ১২:৩৯, ২৫ মে ২০২৩

আপডেট: ১৯:০৬, ২৫ মে ২০২৩

রনির যে ছবি ফেসবুকে ভাইরাল, আলোচনা সমালোচনা

ধাওয়া খেয়ে পালাচ্ছেন রনি

কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর অংশ হিসেবে নারায়ণগঞ্জে বিএনপির পদযাত্রা কর্মসূচীর একদিন পার হয়ে গেলেও বিশৃঙ্খলার সংঘর্ষের রেশ শেষ হয়নি। মাঠ ছাড়িয়ে এখন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হচ্ছে সেসময়ে দুই পক্ষের সংঘর্ষের ছবিগুলো। এর মধ্যে ব্যাপকভাবে শেয়ার করা হচ্ছে জেলা যুবদল সদস্য সচিব মশিউর রহমান রনির একটি ছবি। ছবি শেয়ারকারীতে এতে লিখছেন, ধাওয়া খেয়ে পালালেন জেলা যুবদলের সদস্য সচিব মশিউর রহমান রনি। 

মঙ্গলবার নারায়ণগঞ্জের খানপুর এলাকায় এ পদযাত্রা কর্মসূচী অনুষ্ঠিত হয়। পুরো কর্মসূচীজুড়ে বিবাদে জড়ায় যুবদল ছাত্রদলের দুই গ্রুপ। এর মধ্যে পদযাত্রা শেষে শহরের মিশনপাড়ায় ব্যাপক সংঘর্ষ হয়। সেই সংঘর্ষের নানা ছবি ঘুরছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে।

ঘটনা উল্লেখ করে একজন লিখেন, সংঘর্ষের সময় রনি তার অনুগতদের নিয়ে যুবদল নেতা রফিক গ্রুপকে ধাওয়া ও মারধর করেন। এর আগে রফিক গ্রুপ তাদের মারধর করে হুমকি দেয় এমন অভিযোগ উঠিয়ে তারা এ হামলার চেষ্টা করে। পরে মিশনপাড়ায় অবস্থান করা রফিক অনুগত যুবদল ছাত্রদল নেতাকর্মীরা রনির অনুগতদের ধাওয়া দেয় এবং দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। 

এর মধ্যে রনির দৌড়ে চলে যাবার একটি ছবি পোস্ট করে একজন লিখেছেন, রনিকে দেখা গেছে রফিক গ্রুপের ধাওয়ায় দৌড়ে পালিয়ে যেতে। ছবিটিতে দেখা যাচ্ছে রনি সামনে চলে যাচ্ছেন এবং পেছন থেকে তাকে ধরতে ও মারতে উদ্যত হয়েছেন বিভিন্ন নেতাকর্মীরা। এই ছবিটি দিয়ে আরো নানা বিরূপ মন্তব্যও করছেন যুবদল ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা। 

এর মধ্যে রনিকে নিয়ে ফেসবুকে ঘুরছে নানা কথাও। এর মধ্যে রয়েছে হোয়াটস এ্যাপ ইস্যুসহ নানা ইস্যু। 

এদিকে মিশনপাড়ায় সংঘর্ষে রনির সাথে থাকা অন্তর ৫/৬ জন আহত হয়েছে বলে বিভিন্ন পোস্টগুলোতে দাবি করছেন পোস্টদাতারা। এর মধ্যে বিভিন্ন ছবিতে দেখা যায়, ফতুল্লার রতন যিনি রনির সাথে থাকেন তার ছবি দিয়ে লেখা হয়েছে, সে নাকি হামলা করতে এসেছিল প্রথম তাই তাকে উত্তম মধ্যম দিয়েছেন ছাত্রদলের একই নামে আরেক নেতা। 

এদিকে এ বিষয়টি নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের নানা আলোচনার মধ্যে আরো প্রশ্ন উঠে মহানগর বিএনপির কর্মসূচীতে কেন গেলেন জেলার এসব নেতারা। তাদের উদ্দেশ্যই ছিল সংঘাত সংঘর্ষ করে দলকে দুর্বল করা ও বিরোধীদের সুযোগ করে দেয়া।