বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪

|

জ্যৈষ্ঠ ২৮ ১৪৩১

Advertisement
Narayanganj Post :: নারায়ণগঞ্জ পোস্ট

ফ্ল্যাটে ঢুকে জিম্মি করে ১৭ লাখ টাকা লুট, স্থানীদের হাতে আটক ২

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

প্রকাশিত: ১৭:০৮, ৭ মে ২০২৪

ফ্ল্যাটে ঢুকে জিম্মি করে ১৭ লাখ টাকা লুট, স্থানীদের হাতে আটক ২

প্রতীকী ছবি

নারায়ণগঞ্জ শহরের চাষাঢ়ায় কৌশলে  ফ্ল্যাট বাড়ীতে প্রবেশ করে আবুল কাসেম(৮৩) নামের এক বৃদ্ধ  ও গৃহকর্মীকে অবরুদ্ধ রেখে ১৭ লাখ টাকা লুট করে পালিয়ে যাওয়ার সময় দুই জনকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে স্থানীয়বাসী। এ সময় টাকাসহ পালিয়ে যেতে সক্ষম হয় আটককৃতদের  অপর এক সহোযোগী। 

আটককৃতরা হলো- চাদপুর জেলার হাজীগঞ্জ থানারনউত্তর রাজারগায়ের মৃত: শহিদুল্লাহর পুত্র জসিম উদ্দিন (৪৫) ও একই জেলার মতলব থানার নওগায়ের মৃত: আলী আকবরের পুত্র মোঃ আক্তার হোসেন প্রধান (৫৫)। তবে কৌশলে পালিয়ে যেতে সক্ষম হয় আব্দুল কাদের ওরফে আনিছ (৫৫) নামের তাদের অপর এক সহোযোগী।

এ ঘটনায় আবুল কাসেম বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেছে। 

ঘটনাটি ঘটেছে সোমবার বিকেলে ফতুল্লা মডেল থানার উত্তর চাষাঢ়া খন্দকার রাশেদুল হক এর ৫ম তলা বিল্ডিং এর ৪র্থ তলায়। আটকৃতদের সাত দিনের রিমান্ড চেয়ে মঙ্গলবার দুপুরে আদালতে পাঠিয়েছে পুলিশ।

জানা যায়, বাদীর পরিবারের সদস্যরা সকলেই আমেরিকা প্রবাসী। বাদী একাই ঐ ফ্ল্যাটে বসবাস করতো। বিগত  ছয় বছর হতে আকলিমা (৫৫) বাদীর বাসায় গৃহপরিচারিকা হিসেবে কাজ করিয়া আসিতেছিল। সোমবার সকাল সাড়ে ১০ টার দিকে বাদী বাসায় অবস্থান করার সময় গৃহপরিচারিকা আকলিমা বেগম কাজ করার জন্য আসে। 

বাদী ও গৃহপরিচারিকা আকলিমা বেগম  বাসায় অবস্থান করা কালে ধৃত ও পলাতক আসামিরা বাসার দরজা খোলা পেয়ে কৌশলে ফ্ল্যাটের ভিতর প্রবেশ করে বাদী ও গৃহপরিচারিকা আকলিমা বেগমকে জিম্মি করে ও নানা ভয়ভীতি দেখিয়ে টাকা দিতে বলে। বাদী টাকা দিতে অসম্মতি করলে বাদীর বিছানার নিচে থাকা নগদ ২ লাখ টাকা তারা নিজেরাই নিয়ে নেয়। এক পর্যায়ে ঘরে থাকা ব্যাংকের চেক দিতে বলে। চেক দিতে রাজি না হইলে আসামিরা বাদীকে চড়, থাপ্পর, কিল, ঘুষি মেরে নীলাফুলা জখম করে। এক পর্যায়ে আসামিরা ভয়ভীতি দেখাইয়া ও জিম্মি করে বাদীর স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংক লিমিটেডের একটি চেকে জোর পূর্বক ১৫ লাখ টাকা লিখে স্বাক্ষর করায় নেয়। স্বাক্ষর শেষে আটককৃত জসিম উদ্দিনকে বাসায় পাহাড়ায় রেখে অপর আসামি আক্তার হোসেন প্রধান ও পলাতক আসামি কাদের ব্যাংকে গিয়ে ১৫ লাখ টাকা উত্তোলন করে পুনরায় বাদীর বাসায় চলে আসে।

বাসায় এসে আসামিরা বাসায় থাকা বাড়ীর দলিল, পাসপোর্ট ও মূল্যবান কাগজপত্র, বাদীর ব্যবহৃত একটি এনড্রয়েড মোবাইল ফোন একটি ব্যাগের ভিতর নিয়ে বিকেল ৫ টার দিকে চলে যাওয়ার সময় গৃহপরিচারিকা আকলিমা বেগম ডাক চিৎকার করলে  আশপাশের লোকজন এগিয়ে এসে দুই জনকে ২ লাখ টাকা সহ আটক করতে সক্ষম হলে ও ১৫ লাখ টাকা নিয়ে পালিয়ে যেতে সক্ষম হয় অপর একজন।

এ বিষয়ে ফতুল্লা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নূরে আজম মিয়া জানান, রাতেই মামলা হয়েছে। আসামিদের সাত দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে পাঠানো হয়েছে। পলাতক আসামিকে গ্রেপ্তারে পুলিশের একাধিক টিম কাজ করছে।