শুক্রবার, ০৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৩

|

মাঘ ১৯ ১৪২৯

Advertisement
Narayanganj Post :: নারায়ণগঞ্জ পোস্ট

মেসির ঋণ শোধ করল ফুটবল

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

প্রকাশিত: ০০:৫৭, ১৯ ডিসেম্বর ২০২২

মেসির ঋণ শোধ করল ফুটবল

লিওনেল মেসি

কী নেই লিওনেল মেসির? ফুটবল বুঝে এমন যে কেউ বলে নিদ্বির্ধায় বলে দিতে পারত, বিশ্বকাপ শিরোপা নেই আর্জেন্টাইন খুদেরাজের। অবশেষে মেসির সেই ঋণ শোধ করল ফুটবল।

কয়েক বছর আগে হোর্হে সাম্পাওলি বলেছিলেন, ‘মেসি বিশ্বকাপ না জেতায় তার কাছে ঋণী ফুটবল।’ নির্মম এই সত্যটা কেবল তিনিই অনুধাবন করেননি, আর্জেন্টিনা কাতারে শিরোপা লড়াইয়ে নামার প্রাক্কালে দিদিয়ের দেশমও অকপটে স্বীকার করেন, ‘কিছু ফরাসিও চায় মেসি শিরোপা জিতুক।’

ফ্রান্স-আর্জেন্টিনার ফাইনালে মেসির জন্য প্রার্থণায় ফরাসিরা! শুনতে অবাক লাগারই কথা। বিশ্বাস করাও দুরূহ। কিন্তু খোদ ফ্রান্স কোচ যখন বলেছেন, তখন বিশ্বাস না করেও উপায় নেই। আর যেখানে ব্রাজিলিয়ান গ্রেটরা মেসিকে সমর্থন দিয়ে গেছেন, সেখানে কিছু ফরাসির প্রার্থণা তো সামান্য বটে। কাতারে ব্রাজিলিয়ান গ্রেটদের একত্রিত করতে পারেননি নেইমার ও তার বাহিনী।

অথচ মেসির জন্য হাততালি দিয়েছেন রোনালদিনহো, রবার্তো কার্লোস, কাফু, রোনালদো এবং দিদা। আর্জেন্টাইন খুদেরাজের জাদুকরী ফুটবল মাঠে টেনে এনেছিল পাঁচ ব্রাজিলিয়ান কিংবদন্তিকে। ব্রাজিলের পঞ্চপা-ব উপভোগ করেন মেসিদের সেমিফাইনাল। ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে আর্জেন্টাইনদের তিন গোলের প্রতিটি হাসি ফুটায় রোনালদিনহো-রোনালদোদের মুখে।

রোনালদিনহো এতটাই উত্তেজিত ছিলেন যে মেসিদের দ্বিতীয় গোলের পরই দাঁড়িয়ে করতালি দেন। দুর্ভাগ্য রোনালদিনহোর, একই ভেন্যুতে ফাইনালের দিন হাজির হতে পারেননি তিনি। তবে খেলা শুরুর আগেই প্রিয় মেসিকে শুভকামনা জানান বিশ্বকাপজয়ী সাবেক ফুটবলার। শুধুই কি ব্রাজিলিয়ান বা ফরাসিদের প্রার্থণায় ছিলেন আর্জেন্টিনা ফুটবলের প্রাণভোমরা? মোটেই না।

সবার জানা, ঘোষণা দিয়েই কাতারে ক্যারিয়ারের শেষ বিশ^কাপ খেলতে নামেন মেসি। টুর্নামেন্টের মাঝপথেও সেই ঘোষণা মনে করিয়ে দেন খুদেরাজ। তাই বিশ্বজুড়ে ভক্তরাও চেয়েছিল এবার অন্তত মেসির হাতের ছোঁয়ায় পূর্ণতা পাক বিশ^কাপ শিরোপা।

সবার সেই প্রার্থণা শুনেছেন ঈশ্বর। ভাগ্য বিধাতার আশীর্বাদ ছিল বলেই নাটকীয় ফাইনাল টাইব্রেকারে জিতল মেসির আর্জেন্টিনা। ফুটবলের বরপুত্রও দু’হাতে উঁচিয়ে ধরলেন শিরোপা। গোটা বিশ^ও দেখলো কিংবদন্তি মেসির বিশ^কাপ জয়ের মাহেন্দ্রক্ষণ।