বুধবার, ২২ মে ২০২৪

|

জ্যৈষ্ঠ ৭ ১৪৩১

Advertisement
Narayanganj Post :: নারায়ণগঞ্জ পোস্ট

গার্মেন্টস থেকে বাসায় ফেরার সময় গণধর্ষণ, গ্রেফতার ২

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

প্রকাশিত: ২১:৫৬, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২৩

গার্মেন্টস থেকে বাসায় ফেরার সময় গণধর্ষণ, গ্রেফতার ২

ফাইল ছবি

গার্মেন্টস থেকে বাসায় ফেরার সময় বাড়ীওয়লার পুত্র ও তার সহোযোগিদের হাতে গণধর্ষণের শিকার হয়েছেন গার্মেন্টসে কর্মরত এক নারী শ্রমিক(৩৮)। এ ঘটনায় পুলিশ অভিযুক্ত দুই যুবক কে গ্রেফতার করেছে।

গ্রেফতারকৃতরা হলো ফতুল্লা মডেল থানার ধর্মগঞ্জ পাকাপুল এলাকার ওসমান গণির পুত্র জাফের বিন রিফাত(২৫) ও একই থানার মধ্য ধর্মগঞ্জ পাকাপুল এলাকার মৃত হাজী আঃ রাজ্জাকের পুত্র জোবায়ের আহমেদ সাদি(২৪)।

বৃহস্পতিবার দিবাগত মধ্যরাতে তাদের কে গ্রেফতার করে পুলিশ। 

এর আগে বৃহস্পতিবার দুপুরে ধর্ষনের শিকার ঐ নারী শ্রমিক বাদী হয়ে গ্রেফতারকৃত জাফের বিন রিফাত এবং জোবায়ের আহমেদ সাদি সহ ৫ জনের নাম উল্লেখ্য করে ধর্ষনের অভিযোগ এনে ফতুল্লা মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন।

মামলায় উল্লেখ্য করা হয়, বাদীর স্বামী একজন প্রবাসী। তার বড় ছেলে গ্রামের বাড়ী বাগের হাটে বসবার করে এবং ছোট ছেলে লালপুরস্থ একটি আবাসিক  মাদ্রাসায় পড়ালেখা করে।বাদী দুই মাস পূর্ব হতে তার ছোট বোন ও বোনের স্বামীর সাথে ধর্মগঞ্জ এলাকায় একই বাসায় ভাড়াটিয়া হিসেবে নসবাস করে বিসিকস্থ একটি গার্মেন্টসে চাকুরি করে আসতেছিলো। যাতায়াতের পথে অভিযুক্তরা বাদী ও তার বোনের স্বামীকে নিয়ে বাজে মন্তব্য করে আসছিলো। ১৮ সেপ্টেম্বর বুধবার রাত ৯টার সময় বাদী নিজ কর্মস্থল থেকে বোনের বাসায় আসার সময় বাসার নিচে সিড়ির নিচে পৌছা মাত্র বাড়ীর মালিকের ছেলে অভিযুক্ত আসামীওয়ালিদ রাফাত ও পারভেজ খান বাসার নিচতলাস্থ  অপর আসামী সাদির অফিসে ডেকে নিয়ে যায়। সেখানে নিয়ে গিয়ে বাদীর বোনের স্বামী প্রসঙ্গে নানা কথাবার্তা বলে  পুলিশে ধরিয়ে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে ঐ অফিস কক্ষে প্রথমে ওয়ালিদ ও রাফাত বাদী কে পালাক্রমে  ধর্ষন করে। এ সময় বাইরে পাহারাদরত ছিলো পারভেজ ও আহমেদ সাদি। পরবর্তীতে রাত   একটার দিকে অভিযুক্ত ওয়ালিদ বাদী কে সেখান থেকে ধর্মগঞ্জস্থ তার নিজ রিক্সার গ্যারেজেননিয়ে গিয়ে দ্বিতীয় দফায় ধর্ষন করে। সেখানে কাইয়ুম নামের অপর অভিযুক্ত আসামী বাদী কে ধর্ষন করে। পরবর্তীতে বাদী কে রাত দেড়টার দিকে একটি অটোরিক্সায় তুলে দিলে বাদী তার খালার রেলস্টেশনস্থ বাসায় চলে যায়।

এ বিষয়ে ফতুল্লা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ ((ওসি) নূরে আযম মিয়া জানান, মামলা হয়েছে। এজাহারনামীয় দুই আসামী কে গ্রেফতার করা হয়েছে। পলাতক অপর আসামীদের গ্রেফতারের চেস্টা করা হচ্ছে।